kalerkantho


নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের ওপর হামলা ভাঙচুর

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের ওপর হামলা হয়েছে। তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। হামলাকারীদের ছোরা ইট-পাটকেলের আঘাতে উপজেলা চেয়ারম্যানসহ তিনজন আহত হয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নড়িয়া থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের ছেলে খালেদ শওকত আলীর সমর্থক ও উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম ইসমাইল হকের সমর্থকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চেয়ারম্যান গাড়িতে করে তাঁর কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে উপজেলা সদরের একটি ক্লিনিকের সামনে পৌঁছলে তাঁর গাড়ির ওপরে একদল সন্ত্রাসী হামলা চালায়। এ সময় তাঁর গাড়ির গ্লাস ভাঙচুর করে। হামলাকারীদের আঘাতে চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান আলম বয়াতী ও গাড়িচালক জাকির হোসেন হাওলাদার আহত হন। আহতদের উপজেলা কার্যালয়ে চিকিৎসক এনে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন চেয়ারম্যান। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নড়িয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম ইসমাইল হক বলেন, ‘স্থানীয় সংসদ সদস্যের ছেলে খালেদ শওকত আলীর লোকেরা রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে আমার গাড়ির ওপর হামলা করেছে। আমার কার্যালয়েও তারা হামলা করেছে।’

খালেদ শওকত আলী বলেন, ‘গত শুক্রবার থেকে আমি ঢাকায় অবস্থান করছি। কে বা কারা তাঁর গাড়িতে হামলা করেছে, তা আমি কী করে জানব? আমি সন্ত্রাসের রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না।’

নড়িয়া থানার পরিদর্শক মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, ‘কে বা কারা হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। হামলাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে। এই ঘটনায় এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।’



মন্তব্য