kalerkantho


নওগাঁয় ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধকে হত্যা

শাহজাদপুর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুজনের লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



নওগাঁয় ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধকে হত্যা করা হয়েছে। সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে গৃহবধূ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যুবকের লাশ মিলেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

নওগাঁ : সদর উপজেলায় ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেছে বৃদ্ধ তোজাম্মেল হোসেনের। জমি নিয়ে বিরোধের জেরে গতকাল শনিবার সকালে কীর্ত্তিপুর বাজার এলাকায় প্রকাশ্যে তাঁর পেটে ছুরিকাঘাত করা হয়। পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন ও চৌকিদাররা মিলে ঘাতক মো. সায়েন সিদ্দিক সেতুকে ধরে পুলিশে দেন। সেতু আতিথা গ্রামের আইয়ুব হোসেনের ছেলে। তোজাম্মেল একই গ্রামের জহির উদ্দিনের (মৃত) ছেলে ছিলেন। আতিথার পাশাপাশি জেলা শহরের কাজির মোড়ের বাসায় থাকতেন তিনি। এ ব্যাপারে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান সদর মডেল থানার ওসি মো. তরিকুল ইসলাম।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সদর উপজেলার মাইজহাটি এলাকায় পুকুর থেকে গতকাল শনিবার সকালে যুবক মো. আব্দুল্লাহ মিয়ার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লাশের গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে। পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, ১২ বছর আগে ভবঘুরে শিশু চিরঞ্জিতকে আখাউড়া রেলস্টেশন থেকে নিজ বাড়িতে নিয়ে যান সহিদ মিয়ার স্ত্রী হেনা বেগম। ধর্মান্তরিত করে শিশুটির নাম রাখা হয় আব্দুল্লাহ মিয়া। তখন থেকে সে পালিত মা-বাবার কাছেই ছিল। মা হেনা জানান, পাশের মাজারে গান শোনার জন্য শুক্রবার রাতে বাড়ি থেকে বের হয় ছেলে আব্দুল্লাহ। পরদিন সকালে বাড়ির পাশের পুকুরে ছেলের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা তাদের খবর দেয়। পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। সদর থানার ওসি মো. নবীর হোসেন জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) : শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা দক্ষিণপাড়া গ্রামে থেকে গৃহবধূ হামিদা খাতুনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য গতকাল শনিবার সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মাত্র ১০ মাস আগে নরিনা দক্ষিণপাড়ার দিনমজুর নাসিরের সঙ্গে হামিদার বিয়ে হয়েছিল। স্বজনদের অভিযোগ, স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন হামিদাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় গৃহবধূর চাচা নূর ইসলাম প্রাথমিকভাবে অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।



মন্তব্য