kalerkantho


ঈশ্বরগঞ্জে পুকুরে বিষ দিয়ে মাছ নিধন

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ঈশ্বরগঞ্জে পুকুরে বিষ দিয়ে মাছ নিধন

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার চরনওপাড়া গ্রামে পুকুরে বিষ দেওয়ার পর ছোট-বড় সব মাছ মরে ভেসে উঠেছে। ছবিটি গতকাল সকালে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে শত্রুতা করে পুকুরে বিষ দিয়ে মাছ নিধনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার চরনওপাড়া গ্রামে আল মামুনের দুটি পুকুরে বিষ দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে মাছ চাষি আল মামুন জানান, তিনি চারটি পুকুরে মাছ চাষ করছেন। প্রতিটি পুকুরে প্রায় দুই লাখ টাকার মাছ আছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর দুটি পুকুরে বিষ দেওয়া হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে ওই দুই পুকুরের রুই, কাতল, মৃগেলসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মরে ভেসে উঠছে। এ ঘটনায় পাশের বাড়ির ফয়জুল মিয়ার ছেলে রিপন মিয়াকে (৩৫) দায়ী করেছেন আল মামুন।

মামুন বলেন, তাঁর খামারের কর্মচারী জুয়েলের বাধা উপেক্ষা করে প্রতিবেশী রিপন মিয়া বড়শি দিয়ে প্রায়ই পুকুর থেকে মাছ ধরে নিয়ে যেতেন। গত সোমবার তাঁকে বড়শি ফেলতে নিষেধ করেন জুয়েল। এ কারণে ওই দিন সন্ধ্যায় রাস্তায় একা পেয়ে জুয়েলকে মারধর করেন রিপন। এরপর রাজীবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোদাব্বির হোসেনের কাছে মারার ঘটনা জানিয়ে বিচার চান আল মামুন। চেয়ারম্যান ঘটনাটি দেখবেন বলে আশ্বস্ত করেন। বিচার চাওয়ায় রিপন ক্ষিপ্ত হয়ে ক্ষতি করার হুমকি দেন। এর চার দিনের মাথায় তাঁর পুকুরে বিষ প্রয়োগের ঘটনা ঘটেছে। আল মামুন বলেন, ‘গ্রামে আমার কোনো শত্রু নেই। চুরি করে মাছ ধরতে বাধা দেওয়ায় রিপন ক্ষুব্ধ হয়ে পুকুরে বিষ ঢেলে আমার সর্বনাশ করেছে। এতে আমার কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।’ এ ব্যাপারে অভিযুক্ত রিপনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।



মন্তব্য