kalerkantho

ডাকছে মধু মেলা

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মধু মেলার জন্য প্রস্তুত কেশবপুরের সাগরদাড়ি। আগামী শনিবার থেকে সাগরদাড়িতে উৎসবে মাতবে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের লাখো মানুষ। সারা দেশ থেকেও মানুষ আসবে। সপ্তাহব্যাপী মধু মেলা কবির জন্মভূমির কপোতাক্ষ নদ, জমিদারবাড়ির আম্রকানন, বুড়ো কাঠবাদামতলা, বিদায় ঘাটসহ মধুপল্লী ডাকছে মধুভক্তদের। বর্ণিল সাজে সেজেছে সাগরদাড়ি। নেওয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি।

শনিবার বিকেলে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে মেলার উদ্বোধন করবেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, মো. মনিরুল ইসলাম, কাজী নাবিল আহম্মেদ, রণজিৎ কুমার রায়, স্বপন ভট্টাচার্য্য, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, যশোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, সাংবাদিক শ্যামল সরকার প্রমুখ।

মেলা উপলক্ষে এলাকাবাসী অতিথিও নিমন্ত্রণ করেছে। সাগরদাড়ির পাশের গ্রাম আওয়ালগাঁতির তুহিন রেজা জানান, তাঁরা তাঁর বোন-ভগ্নিপতিদের নিমন্ত্রণ করেছেন। ভবানীপুরের গৃহবধূ শাহিদা সুলতানা জানান, তিনি তাঁর ভাই-ভাবি, ভাইপো-ভাইঝিদের দাওয়াত দিয়েছেন। খেজুরের রসে ভেজানো পিঠায় অতিথি আপ্যায়নের জন্য তৈরি করেছেন ২১ কেজি চালের গুঁড়া। সাগরদাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত জানান, মেলা উপলক্ষে সাগরদাড়ি ছাড়াও অন্য ইউনিয়নগুলোতে চলছে নানা আয়োজন। বিশেষ করে খেজুরের রসে ভেজানো পিঠায় অতিথি আপ্যায়নের জন্য চালের গুঁড়া তৈরিতে ব্যস্ত গৃহবধূরা।

মেলায় কুটির শিল্প, গ্রামীণ পসরা, সার্কাস, বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা, নাটক, কবিতা আবৃত্তিসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মেলা উদ্‌যাপন কমিটির সদস্যসচিব মো. মিজানূর রহমান জানান, মেলা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে উদ্‌যাপনের লক্ষ্যে সব কাজ শেষ করা হয়েছে।

মেলায় ‘মধুসূদনের স্বদেশচেতনা ও বাঙালি জাতীয়তাবোধ’, ‘মধুসূদনের আন্তর্জাতিকতা ও আন্তর্জাতিক বিশ্বে মধুসূদন’, ‘বাংলা কবিতায় আধুনিকতা ও মাইকেল মধুসূদন দত্ত’, ‘মধুসূদনের জীবন ও সাহিত্য’, ‘মধুসূদন ও মেঘনাদবধ কাব্য’ ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা হবে। এতে অতিথি থাকবেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আনোয়ার হোসেন, নজরুল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক কবি মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক, যশোর এম এম কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর নমিতা রানী বিশ্বাস, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পিযূষকান্তি ভট্টাচার্য্য, অধ্যক্ষ (অবসরপ্রাপ্ত) সাধন রঞ্জন ঘোষ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান, আমিরুল আলম খান, আব্দুল মান্নান, মোহাম্মদ আব্দুল আলীম, অসিত বরণ ঘোষ প্রমুখ। মেলার শেষ দিন মহাকবি মধুসূদন পদক প্রদান ও সমাপনী অনুষ্ঠানে অতিথি থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, সিভিল সার্জন দিলীপ কুমার রায়, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন।

 



মন্তব্য