kalerkantho


শীতের রাতে গরু পাহারায় বাবা, ছেলেরা ঘুমে

বীরগঞ্জে ইউএনওর হানা

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শীতের রাতে গরু পাহারায় বাবা, ছেলেরা ঘুমে

অবিনাশ রায়ের হাতে কম্বল তুলে দেন ইউএনও

৮০ বছর বয়সের বৃদ্ধ অবিনাশ রায়। ঠাণ্ডার মধ্যে খোলা বারান্দায় একটি ছেঁড়া কাঁথা গায়ে মুড়ে শুয়ে আছেন। কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুই ছেলে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে লেপ-তোশকের মধ্যে শুয়ে আছে। তাকে গরু পাহারা দেওয়ার জন্য বাইরে ঘুমাতে বাধ্য করা হয়েছে। এ কারণে কনকনে শীতে খোলা বারান্দায় শুয়ে আছেন।

গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার জালিয়াপাড়া গ্রামে গিয়ে এ ঘটনা দেখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আলম হোসেন।

তিনি জানান, কয়েক রাত ধরে গ্রামের পর গ্রাম ছুটে গিয়ে অসহায় মানুষদের শীতবস্ত্র বিতরণ করছেন তিনি। এর ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার মধ্য রাতে জালিয়াপাড়া গ্রামে যান। সেখানে গিয়ে একটি বাড়িতে দেখেন এক বৃদ্ধ বাইরে শুয়ে ঠাণ্ডায় প্রচণ্ড কাঁপছেন। তাঁকে ডেকে তুলে জানতে চান, ‘এত শীতের মধ্যে খোলা বারান্দায় শুয়ে আছেন কেন?’

বৃদ্ধের কথা শুনে ইউএনও তাঁর দুই ছেলে স্বাধীন রায় (৪৮) ও মহেশ রায়কে (৪৩) ঘুম থেকে ডেকে তোলেন। তাঁদের ঘর থেকে বের করে দেন। এরপর তাঁর বাবাকে ঘরের মধ্যে খাটে ঘুমানোর ব্যবস্থা করেন। পরে ছেলেরা তাঁদের ভুলের জন্য বাবার কাছে ক্ষমা চান। বৃদ্ধকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেওয়ারও আশ্বাস দেন ইউএনও। এ সময় তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন নিজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক ও শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কে এম কুতুব উদ্দিন।

ইউএনও মোহাম্মদ আলম হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিষয়টি আমার কাছে অমানবিক মনে হয়েছে। আমাদের সবার উচিত শীতার্তদের পাশে দাঁড়ানো।’

 


মন্তব্য