kalerkantho


বাসে ধর্ষণ ও হত্যা

তৃতীয় দফায় আরো চারজনের সাক্ষ্য

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় তৃতীয় দফায় গতকাল সোমবার আরো চারজনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত হিসেবে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া এ সাক্ষ্য নেন। গত বুধবার থেকে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। সেদিন রাষ্ট্রপক্ষ থেকে ৯ জন সাক্ষীর হাজিরা দাখিল করে। সময় স্বল্পতার কারণে শুধু মামলার বাদী এসআই আমিনুল ইসলামের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আদালত।টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট নাছিমুল আক্তার নাছিম জানান, সোমবার আদালতে সাক্ষ্য দেন ইমাম হোসেন, লাল মিয়া, হাসমত আলী ও এস এ রৌফ। এর আগে রবিবার সাক্ষ্য দেন আব্দুর রশিদ, প্রবীর কুমার, আবুল হোসেন ও রহিজ উদ্দিন। তাঁরা সবাই বাদীপক্ষের সাক্ষী। এ সময় মামলার পাঁচ আসামিকে আদালতে উপস্থিত করা হয়। আজ মঙ্গলবার এই মামলার ৯ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করে আদালত থেকে নোটিশ জারি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রূপাকে চলন্ত বাসে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। পরে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে তাঁর মৃতদেহ ফেলে যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে তাঁকে দাফন করে। এ ঘটনায় পুলিশ মধুপুর থানায় হত্যা মামলা করে। গত ২৮ আগস্ট ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কের ছোঁয়া পরিবহনের সহকারী শামীম, আকরাম ও জাহাঙ্গীর এবং চালক হাবিবুর ও সুপারভাইজার সফর আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।



মন্তব্য