kalerkantho


মুন্সীগঞ্জে আবিষ্কৃত হলো বৃহৎ পিরামিড আকৃতির স্তূপ

নাটেশ্বর নিয়ে প্রকল্প হচ্ছে : অর্থমন্ত্রী

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জের নাটেশ্বরে প্রত্নতাত্ত্বিক খননে আবিষ্কৃত হলো বাংলাদেশের বৃহৎ পিরামিড আকৃতির বিশাল নান্দনিক স্তূপ। গতকাল শনিবার বিকেলে নাটেশ্বর গ্রামে প্রত্নতাত্ত্বিক অনুসন্ধান ও খননে আবিষ্কৃত প্রত্নবস্তু নিয়ে প্রেস কনফারেন্সে এই ঘোষণা দেন বিক্রমপুর অঞ্চলের প্রত্নতাত্ত্বিক খনন ও গবেষণা প্রকল্পের পরিচালক ও অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের সভাপতি নূহ-উল-আলম লেনিন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিশেষ অতিথি ছিলেন অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন অর রশীদ, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম, অধ্যাপক ড. সুফি মুস্তাফিজুর রহমান, চীনা গবেষক অধ্যাপক চাই হুনাবো প্রমুখ।

অতিথিরা আবিষ্কৃত পুরাকীর্তি ঘুরে দেখেন। তাঁরা নাটেশ্বরে আবিষ্কৃত  প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন দেখে অভিভূত হন।

আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রত্নতাত্ত্বিক এই কাজে তাঁর সহযোগিতার আশ্বাসের কথা বলেন। তিনি বলেন, মহেঞ্জোদারোর আদলে নাটেশ্বর বৌদ্ধ নগরীকে সংরক্ষণের জন্য আগামী বাজেটে বরাদ্দ থাকবে। সেই লক্ষ্যে একটি প্রকল্প করে নাটেশ্বরের সঙ্গে খননকাজে সম্পৃক্ত একটি টিম ভারতের মহেঞ্জোদারোতে পাঠানো হবে; তারা যাতে প্রশিক্ষিত হয়ে আসতে পারে। সেখানে পাঁচ হাজার বছরের সভ্যতা সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সাল থেকে নাটেশ্বরের দেউলে শুরু হয় প্রত্নতাত্ত্বিক খনন কাজ। এর আগে ১১০০ বছর আগের বৌদ্ধ বিহার আবিষ্কৃত হলেও নতুন করে এই স্থানে আবিষ্কৃত হলো দেশের সর্ববৃহৎ পিরামিড আকৃতির স্তূপ, যেটির খননকাজ অনেকাংশে বাকি রয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।



মন্তব্য