kalerkantho


বরিশাল ও ঝালকাঠি

বাস মালিকদের লাভের দ্বন্দ্বে যাত্রী হয়রান

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বরিশাল বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি বিভাগের অন্য জেলার সড়কে ঝালকাঠি মালিক সমিতির বাস চলাচল করতে দিচ্ছে না। এর প্রতিবাদে ঝালকাঠি বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি বরিশাল মালিক সমিতির ২২টি বাসকে এ জেলায় ঢুকতে দিচ্ছে না।

ঝালকাঠি জেলার সড়ক ব্যবহার করে বরিশাল মালিক সমিতির গাড়িগুলো খুলনা, পিরোজপুর, বাগেরহাট ও যশোর পথে চলাচল করে। বাস বন্ধ হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছে এই অঞ্চলের সাধারণ যাত্রীরা।

বরিশালের বাস প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ঝালকাঠির রায়াপুর এলাকায় অবস্থান নেয় ঝালকাঠি বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি এবং আন্ত জেলা শ্রমিক ইউনিয়ন। দুপুরে বরিশাল থেকে ছেড়ে আসা ঝালকাঠির আমুয়াগামী একটি বিআরটিসি বাসে যাত্রী নেওয়াকে কেন্দ্র করে সুপারভাইজারকে মারধর করা হয়। এ সময় রাস্তায় পড়ে গিয়ে সুপারভাইজার মো. কাশেমের একটি পা ভেঙে যায়। তাঁকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়।

আহত কাশেম জানান, দুপুরে বরিশাল থেকে ঝালকাঠির স্কুল-কলেজে পড়া ছেলে-মেয়ে বাড়ি ফেরার জন্য বিআরটিসি বাসে ওঠে। বাসটি রায়পুরে এলে মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়নের লোকজন থামিয়ে দেয়। তারা গাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে বাধা দিলে তাঁকে মারধর করা হয়।

ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন বলেন, বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনা-কুয়াকাটা পথে ঝালকাঠি মালিক সমিতির বাস চলাচল করতে দিচ্ছে না বরিশাল বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি। অথচ ঝালকাঠির সব রুট ব্যবহার করে বরিশাল মালিক সমিতি তাদের গাড়ি চালাচ্ছিল। সড়কে ন্যায্য হিসসার দাবিতে গত মঙ্গলবার বিকেলে বরিশালে সমঝোতা বৈঠক ছিল। বরিশাল বাস মালিক সমিতির নেতারা না আসায় বৈঠক ভেস্তে যায়। দক্ষিণাঞ্চলের বাস মালিক সমিতির দাবি উপেক্ষিত হওয়ায় ঝালকাঠির সড়কে বরিশাল মালিক সমিতির বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।



মন্তব্য