kalerkantho


পরিবহন খাত

মানিকগঞ্জে কর্তৃত্ব নিয়ে আ. লীগে উত্তেজনা

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মানিকগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে মানিকগঞ্জ বাস, মিনিবাস, টেম্পো ওনার্স গ্রুপ। গতকাল রবিবার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। দখলদারমুক্ত করে নির্বাচিত নেতাদের কাছে টার্মিনাল হস্তান্তরের দাবিতে আগামী ২ জানুয়ারি এই ঘর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়।

মানিকগঞ্জ বাস, মিনিবাস, টেম্পো ওনার্স গ্রুপের সভাপতি পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সুলতানুল আজম আপেল, জেলা যুবলীগের সভাপতি সুদেব সাহা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লিয়াকত আলী ভাণ্ডারি, সদর আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসরাফিল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোনায়েম খান ছাড়াও বিভিন্ন পরিবহনের মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

এ সময় বক্তারা বলেন, মানিকগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ধর্মঘট ডাকার বৈধতা নেই। কেননা ওই নামে কোনো বৈধ সংগঠন নেই। তাঁরা বলেন, মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক কাজী এনায়েত হোসেন টিপু ও জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি বাবুল সরকার ভুয়া সংগঠনের আহ্বায়ক ও সদস্যসচিব সেজে দলের নাম ভাঙিয়ে এত দিন চাঁদাবাজি করে আসছিলেন। কিন্তু মালিক-শ্রমিকরা তাঁদের টার্মিনাল থেকে বের করে দিয়েছে। এখন তাঁরা ধর্মঘটের নামে টার্মিনাল দখল করে আবার চাঁদাবাজির চেষ্টা করছেন। বক্তারা বলেন, তাঁদের সেই সুযোগ দেওয়া হবে না। সাধারণ মালিক-শ্রমিকরা তাঁদের প্রতিহত করবে। বক্তারা আরো বলেন, মানিকগঞ্জ সদর আসনের সংসদ সদস্য স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপনের নামে কাজী এনায়েত হোসেন টিপু ও বাবুল সরকাররা কুৎসা রটিয়ে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করার পাঁয়তারা করছেন।

প্রসঙ্গত, কয়েক দিন ধরে পোস্টার-লিফলেট বিলি করে জেলা পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ আগামী ২ জানুয়ারি সকাল-সন্ধ্যা ধর্মঘটের ডাক দেয়। লিফলেটে দাবি করা হয়, মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে তাঁর ভাই ইসরাফিল হোসেন ও জাহিদুল ইসলাম বহিরাগতদের দিয়ে গত ১৩ অক্টোবর মানিকগঞ্জ বাস টার্মিনালের মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়ন অফিস দখল করে চাঁদাবাজি করছেন।



মন্তব্য