kalerkantho


কুড়িগ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ১৫

সালথায় হাঙ্গামায় জখম ৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর ও কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



কুড়িগ্রামের হলোখানায় বিরোধপূর্ণ জমি দখল নিয়ে সংঘর্ষে একজন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ৬৫ একর জমি নিয়ে এনামুল হক গং এবং একরামুল গংয়ের মধ্যে বিরোধ চলছিল। বুধবার দুপুরে এনামুল হক ও তাঁর পরিবারের লোকজনসহ শ্রমিকদের নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমির কাশ কাটতে গেলে প্রতিপক্ষ একরামুল হক ও তাঁর স্বজনদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন হলোখানা মৌজার ভোলা মণ্ডলের ছেলে নুরজামাল মণ্ডল। তিনি এনামুলের ভাই। এ সময় আহত হন ১৫ জন।

আহতরা হলেন ইসলাম মণ্ডল, সাইয়েদুল হক, মিলন, মাঈদুল মণ্ডল, সিরাজুল হক, মালেকা বেগম, রফিকুল ইসলাম মণ্ডল, শহিদুল মণ্ডল প্রমুখ। আহতরা বর্তমানে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি এস এম আব্দুস সোবহান বলেন, এ ব্যাপারে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে ফরিদপুরের সালথায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে। এ সময় উভয় পক্ষের ১৪টি বাড়িতে ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার সকালে চাঁদপুর গ্রামে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে ফারুক মিয়ার সঙ্গে ওমর মেম্বারের বিরোধ চলছিল। এর জেরে গতকাল সকালে দুই পক্ষের শতাধিক সমর্থক দেশীয় অস্ত্রসহ মুখোমুখি অবস্থান নেয়। পরে এক পক্ষ আরেক পক্ষের দিকে ইটপাটকেল ছুড়ে মারে। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ির ঘটনা ঘটে। এতে পাঁচজন আহত হয়। এ সময় উভয় পক্ষের ১৪টি বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। সেখানে পুলিশ মোতায়েন আছে।

সালথা থানার ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন খান জানান, কোনো পক্ষই এখনো অভিযোগ করেনি।

 


মন্তব্য