kalerkantho


ফরিদপুরে আ. লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

লক্ষ্মীপুরে আরো ১২ জন জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফরিদপুরের সালথায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে রামকান্তপুর ইউনিয়নের বাহিরদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রামকান্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী লিটুর সঙ্গে সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলামের বিরোধ চলছিল। গতকাল দুপুরে বাহিরদিয়ার বাসিন্দা ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি মহিদ মাতুব্বরের বাড়িতে সভা করতে যাচ্ছিল বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ সময় সিরাজের লোকজন তাদের মহিদের বাড়িতে যেতে নিষেধ করে। এ ঘটনায় লিটুর সমর্থকরা বিএনপির নেতাকর্মীদের পক্ষ নেয়। এর জেরে লিটু ও সিরাজের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় উভয় পক্ষের  ১৫ জন আহত হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

অন্যদিকে লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি জানান, সদর উপজেলার গণমিলনায়তনে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়াধাওয়ির ঘটনা ঘটেছে। এতে ১২ নেতাকর্মী আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দলীয় সূত্র জানায়, আগামী ২৯ নভেম্বর সম্মেলন হওয়ার কথা। এ জন্য বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়। এতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু ও সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়নসহ সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন। একপর্যায়ে স্লোগান দেওয়া নিয়ে দুই পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে ১২ নেতাকর্মী আহত হয়। এ সময় বেশ কিছু চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করা হয়। চন্দ্রগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এমদাদুল হক বলেন, ‘দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝির কারণে ধাওয়াধাওয়ি হয়েছে। ’


মন্তব্য