kalerkantho


তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সংঘর্ষ

ফরিদপুরে নিহত ১ হবিগঞ্জে আহত ৩০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কোদালিয়া-শহীদনগর ইউনিয়নের খুদুরিয়া গ্রামে সংঘর্ষে রবিউল মোল্লা (২৮) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার সকালে কয়েক দফা ওই সংঘর্ষে দুই পক্ষের আরো অন্তত ২০ জন আহত হয়।

এ সময় বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর ও লুট করা হয়েছে। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, ওই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ইলিয়াস মোল্লার সমর্থক হাবিবুর রহমান হবি স্থানীয় একটি চায়ের দোকানে গেলে যুবলীগ নেতা দেলু ফকিরের কয়েকজন সমর্থক তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তাঁকে লাঞ্ছিত করে। খবর পেয়ে তাঁর ছেলে রবিউল মোল্লা ঘটনাস্থলে গেলে কয়েকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁকে এলোপাথারি কুপিয়ে আহত করে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। রবিউল নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে দুই পক্ষের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নগরকান্দা থানার ওসি এ এফ এম নাসিম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত।

এদিকে হবিগঞ্জের মাধবপুরের বাঘাসুরা গ্রামে শনিবার সকালে সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ১৬ জনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাঘাসুরা গ্রামের সামছু মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া এবং আলী আকবরের ছেলে নানু মিয়ার মধ্যে পদবি নিয়ে বাগিবতণ্ডা হয়। নানু মিয়া নিজেকে বাঘাসুরা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড কৃষক লীগের সভাপতি এবং রুবেল মিয়া নিজেকে একই ওয়ার্ডের বিএনপির সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দিয়ে কথা-কাটাকাটি করেন। তাঁরা উভয়ে নিজের পদবি বেশি গুরুত্বপূর্ণ দাবি করে একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয়ের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। পরে স্থানীয় মুরব্বিরা এসে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনেন।

 


মন্তব্য