kalerkantho


শ্রীপুরে আল আমিন হত্যাকাণ্ড

মানববন্ধনে ‘আল আমিন মঞ্চ’ করে কর্মসূচি দেওয়ার ঘোষণা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ব্যানার-ফেস্টুনে এক পাশে নিহত আল আমিন, অন্য পাশে ইকবাল হোসেন সবুজের গলায় ফাঁসির রজ্জু ঝোলানো ছবি। প্রায় ১২ কিলোমিটার পথের ১৬টি স্থানে কয়েক শ ব্যানার-ফেস্টুন হাতে আল আমিন হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করে মানববন্ধন করেছে নেতাকর্মীরা।

গতকাল শনিবার দুপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গড়গড়িয়া মাস্টারবাড়ী থেকে জৈনাবাজার পর্যন্ত ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে নেতাকর্মীরা দাবি করে, ‘যেকোনো মূল্যে আমরা আল আমিন হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। অচিরেই আল আমিন মঞ্চ ঘোষণা করে টানা কঠোর কর্মসূচি দেব। ’

২০১৪ সালের ৮ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী দুই আওয়ামী লীগ নেতার কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষকালে খুন হন ছাত্রলীগ নেতা আল আমিন। স্বজনদের অভিযোগ, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের নেতা ইকবাল হোসেন সবুজের নেতৃত্বে আল আমিনকে জনাকীর্ণ এলাকায় প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করা হয়। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের বাবা আবুল হোসেন বাদী হয়ে ইকবাল হোসেন সবুজ, শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমানসহ ৩৭ নেতাকর্মীকে আসামি করে শ্রীপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের তখনকার পরিদর্শক (ওসি) আবুল খায়ের। তিনি ইকবাল হোসেন সবুজ, মেয়র আনিছুর রহমানসহ ছয় আসামিকে বাদ দিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। এতে বাদী নারাজি দিলে তাও খারিজ করে দেন আদালত।

নিহতের বড় ভাই আলমগীর হোসেন জানান, এরপর এক আসামির আবেদনের পর উচ্চ আদালত মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন। তবে বাদীপক্ষের নিম্ন আদালতের আইনজীবী আবদুস সালাম বলেন, ‘অভিযোগপত্র গ্রহণের পর আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে আমি রিভিশন করেছি। রিভিশনটি অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২-এ শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে। ’

এদিকে এ হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানিয়ে তিন বছর ধরে বিভিন্ন সময় নানা কর্মসূচি চলছে। গতকাল দুপুর পৌনে ১২টার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগসহ এর সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে প্রায় ১২ কিলোমিটার পথে ১৬টি স্থানে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পৃথক ওই মানববন্ধনে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বুলবুল, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ নজরুল ইসলাম, উপজেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি নূরুন্নবী আকন্দ, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর আলম সিরাজী, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কমরউদ্দিন, কৃষক লীগের সভাপতি কবির হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সফিকুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকিরুল হাসান জিকু প্রমুখ।


মন্তব্য