kalerkantho


রামুতে চিকিৎসকের ১৬ পদই শূন্য

মাত্র চারজন চিকিৎসক

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কক্সবাজারের রামু উপজেলায় স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত রয়েছেন মাত্র চারজন সরকারি চিকিৎসক। অথচ চিকিৎসক থাকার কথা ২০ জন।

চারজন চিকিৎসকই কর্মরত ৩১ শয্যাবিশিষ্ট রামু সরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। উপজেলায় চিকিৎসকের আরো ১৬টি পদই খালি রয়েছে। এতে রামু উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে উদ্বিগ্ন এলাকার লোকজন।

জানা গেছে, প্রতিটি ইউনিয়নে একজন করে চিকিৎসক থাকার কথা। সে অনুযায়ী রামু উপজেলায় ১১টি ইউনিয়নেই কর্মরত থাকার কথা ১১ জন চিকিৎসক। কিন্তু বর্তমানে রামুর কোনো ইউনিয়নেই চিকিৎসক নেই। ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোয় চিকিৎসকের অভাবে চিকিৎসা না পেয়ে ব্যর্থ হয়ে ফিরে যাচ্ছে লোকজন।

জানা যায়, ৩১ শয্যার রামু উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দৈনিক তিন শতাধিক রোগী চিকিৎসাসেবার জন্য ভিড় করে থাকে। এ ছাড়া দৈনিক ৪০-৪৫ জন রোগী ভর্তি থাকে।

উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের এসব রোগীর সেবায় নিয়োজিত থাকার কথা ৯ জন চিকিৎসকের। অথচ কর্মরত আছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ মাত্র চারজন চিকিৎসক। এ বিষয়ে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আবদুল মন্নান বলেন, ‘হাসপাতালের গুরুত্বপূর্ণ চারটি মেডিক্যাল অফিসারের পদই শূন্য রয়েছে। এখানে গাইনির ডাক্তার নেই। নেই এনেসথেসিয়া, মেডিসিন ও সার্জারির মেডিক্যাল অফিসারও। সর্বশেষ গত রবিবার হাসপাতালের একজন মেডিক্যাল অফিসারকেও উচ্চতর ডিগ্রির জন্য রিলিজ করা হয়েছে। ’ ডাক্তার আবদুল মন্নান জানান, রামু উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে মাত্র কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে একজন চিকিৎসক ছিলেন। তিনিও ডেপুটেশনে রয়েছেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। অন্য একজনও ডেপুটেশনে রয়েছেন কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে।

রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, ‘রামুর চিকিৎসা পরিস্থিতির কথা সব সময় বলে আসছি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে। কিন্তু কোনো ফল হচ্ছে না। ’

রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম বলেন, হাসপাতালটিতে দিন দিন রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু হাসপাতালে চিকিৎসকের তীব্র সংকট। উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ সভায় বিষয়টি উত্থাপন করা হয়েছে।


মন্তব্য