kalerkantho


তিন জেলায় হামলা সংঘর্ষে নিহত ৩

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



তিন জেলায় হামলা সংঘর্ষে নিহত ৩

জয়পুরহাট, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ, জামালপুরের ইসলামপুর, কুড়িগ্রামের রৌমারী ও সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জে দুই পক্ষের মধ্যে হামলা-সংঘর্ষে তিনজন নিহত এবং ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে।  

জয়পুরহাট : সদর উপজেলার ফরিদপুর গ্রামে গাছ কাটতে বাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত কৃষক জয়নাল আবেদীন মারা গেছেন।

বুধবার সকালে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। জয়নাল গ্রামটির মৃত ছালামত আলীর ছেলে। একই ঘটনায় আহত আরো তিনজন জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। হামলার ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ চারজনকে গ্রেপ্তার করে। জানা যায়, জয়নাল আবেদীনের জমিতে লাগানো গাছ গত মঙ্গলবার বিকেলে প্রতিবেশী মতিউর রহমান, আনিছুর রহমানসহ কয়েকজন কাটতে যায়। এ সময় বাধা দিলে মতিউরসহ তাদের সহযোগীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে জয়নাল, হারুন, তরুণ ও সিরাজুল ইসলাম আহত হন। তাঁদের জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু জয়নালের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাতেই তাঁকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সকালে তিনি মারা যান। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন শাহাদত, বকুল, শহিদুল ইসলাম ও শাহাজাহান আলী।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বিপুল মণ্ডল (২৪) নামের এক যুবক সংঘর্ষে নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার মধ্যরাতে উপজেলার মনোহরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিপুল মনোহরপুর গ্রামের ফজলু মণ্ডলের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এলাকার লোকজন জানায়, শিমলা-রোকনপুর ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি সদস্য পুকুরিয়া গ্রামের লিটন হোসেন ও মনোহরপুর গ্রামের পরাজিত ইউপি সদস্য বজলু মণ্ডলের মধ্যে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে দ্বন্দ্ব চলছিল। দুজনই আওয়ামী লীগের সমর্থক। কালীগঞ্জ থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রাতে দুই গ্রুপ লাঠিসোঁটা, রামদা, ঢাল ও সড়কি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় বিপুল মণ্ডলসহ ছয়জনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে বিপুল মারা যান।

জামালপুর : ইসলামপুরের পশ্চিম পলবান্ধা এলাকায় গত মঙ্গলবার জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে বিধবা রসমালা বেওয়া নিহত হয়েছেন। রসমালা একই এলাকার মৃত নাজির উদ্দিনের স্ত্রী। তিনি নিঃসন্তান ছিলেন।   জানা যায়, বসতভিটার জমি নিয়ে রসমালা বেওয়ার সঙ্গে তাঁর ভাই আবির উদ্দিন ও ভাতিজা গোলাপ উদ্দিনের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এর জেরে মঙ্গলবার বিকেলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হলে রসমালা গুরুতর আহত হন। চিকিৎসার অভাবে সবার অজান্তে রাতেই তিনি মারা যান। পরদিন বুধবার সকালে ঘরে তাঁর লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়।

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) : রৌমারী উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের নারী-পুরুষসহ ১৫ জন আহত হয়। গতকাল সকালে উপজেলার হাপাতিকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় এক পক্ষের বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাটের পর আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে এক একর জমি নিয়ে হাপাতিকান্দা গ্রামের মতিয়ার রহমানের সঙ্গে একই গ্রামের জাইদুল ইসলামের বিরোধ চলছে। এ নিয়ে একাধিক সালিস বৈঠক হয়েছে। মতিয়ার জমির বৈধ মালিক বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু জাইদুল জমিটি দখলে নেওয়ার পাঁয়তারা করতে থাকেন। গতকাল মতিয়ার জমিটিতে হালচাষ করতে গেলে জাইদুলের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাঁর ওপর হামলা চালায়। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় উভয় পক্ষের নারী-পুরুষসহ ১৫ জন আহত হয়। একপর্যায়ে জাইদুলের লোকজন স্লোগান দিয়ে মতিয়ারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করে। পরে বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়। আহতদের মধ্যে ৯ জন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। অন্যদের উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে রৌমারী থানার ওসি এ বি এম সাজেদুল ইসলাম জানান, উভয় পক্ষই অভিযোগ দিয়েছে।

সুনামগঞ্জ : দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশত লোক আহত হয়েছে। গতকাল দুপুরে উপজেলার উফতিরপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জানা যায়, উফতিরপাড়ের হযরত আলী ও খেলন মিয়ার মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি মামলা চলছে। বিভিন্ন সময়ে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। এর জেরে গতকাল দুপুরে দুই পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়ায়। এ সময় উভয় পক্ষের ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশত আহত হয়।


মন্তব্য