kalerkantho


গলাচিপায় ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা

কালিয়াকৈরে একজনের ঝুলন্ত লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



পটুয়াখালীর গলাচিপায় ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আর তা দেখে ফেলায় নৈশপ্রহরীকে কোপানো হয়েছে। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে রাজমিস্ত্রির সহযোগীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

পটুয়াখালী : গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি এলাকায় কাঠ ব্যবসায়ী ইলিয়াস খাঁকে গলা কেটে হত্যার পর লাশ পুকুরে ফেলে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ দৃশ্য দেখে ফেলায় দুর্বৃত্তরা বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের পানপট্টি শাখার নৈশপ্রহরী মো. দেলোয়ার দফাদারকে কুপিয়ে আহত করে। তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে গত সোমবার রাতে পানপট্টির মুক্তিযুদ্ধের হাটসংলগ্ন পুকুরটি থেকে ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি পানপট্টি ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের নিজাম উদ্দিন খাঁর (মৃত) ছেলে। গলাচিপা থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা বলেন, ‘হত্যার কারণ উদ্ঘাটনের কাজ চলছে। ’

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) : কালিয়াকৈর উপজেলায় রাজমিস্ত্রির সহযোগী আব্দুর রহিমের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার পল্লী বিদ্যুৎ উত্তরপাড়া এলাকায় ভাড়াবাড়ির ঘর থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। রহিম ময়মনসিংহের কোতোয়ালি থানার চরজেলখানা এলাকার ইসলাম হোসেনের (মৃত) ছেলে। শ্রমিকের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এক মাস আগে আব্দুর রহিম তাঁর স্ত্রী ফাতেমা আক্তারকে নিয়ে জীবিকার খোঁজে কালিয়াকৈরে আসেন। পল্লী বিদ্যুৎ উত্তরপাড়া এলাকায় শুকুর আলীর বাড়ি ভাড়া নেন তাঁরা। সেখানে রহিম বিভিন্ন এলাকায় রাজমিস্ত্রির সহযোগী হিসেবে এবং তাঁর স্ত্রী পোশাক কারখানায় কাজ করছিলেন। হঠাৎ স্ত্রী ফাতেমা অসুস্থ হয়ে পড়লে গত শনিবার তাঁকে কোতোয়ালির চরজেলখানার বাড়িতে নিয়ে যান রহিম। স্ত্রীকে রেখে পরদিন রবিবার রাতে তিনি কালিয়াকৈরে ভাড়াবাসায় চলে আসেন। তখন থেকেই তাঁর ঘরের দরজা বন্ধ ছিল। এতে বাড়ির অন্য ভাড়াটেদের সন্দেহ হয়। অনেক ডাকাডাকির পরও কোনো সারাশব্দ না পেয়ে তারা ভেতরে উঁকি দিয়ে ঘরের আঁড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় রহিমের লাশ ঝুলতে দেখে বিষয়টি বাড়ির মালিককে জানায়।


মন্তব্য