kalerkantho


রাজাপুরে নারী ইউপি সদস্যের রোষানলে দুজন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার শুক্তাগড় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্যের রোষানলে পড়েছেন দুজন। আহতদের রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা জানান, পারিবারিক বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য গত রবিবার সকালে শুক্তাগড় ইউপি চেয়ারম্যান মো. মজিবুল হকের কাছে যান সুক্তাগড় গ্রামের কুলসুম বেগম। চেয়ারম্যান বিষয়টি ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য সোনিয়া আক্তারকে দেখতে বলেন। সোনিয়ার কাছে গিয়ে কুলসুম কিছু বলার আগেই ক্ষিপ্ত হন তিনি। একপর্যায় উভয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এর জের ধরে সন্ধ্যায় কেওতা মাদরাসা এলাকায় দুলাল ও তাঁর বোন কুলসুমের ওপর হামলা করেন সোনিয়া ও তাঁর স্বামী আবু বক্কর। পরে ভাই-বোনকে একটি ঘরের ভেতর আটকে রাখা হয়। সেখানে ইউপি সদস্য, তাঁর স্বামী ও তাঁদের সহযোগীরা লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে দুজনকে। খবর পেয়ে চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান। আহত দুলাল অভিযোগ করেন, ‘সোনিয়া সমস্যার কথা বলতেই ক্ষিপ্ত হয়ে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

সন্ধ্যায় স্বামী-স্ত্রী মিলে আমাদের দুই ভাই-বোনের ওপর হামলা চালান। একটি কক্ষে প্রায় এক ঘণ্টা আটকে রেখে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন। ’

এ বিষয় নারী ইউপি সদস্য সোনিয়া আক্তার বলেন, ‘কুলসুম ও তাঁর ভাই আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। খোদ ইউনিয়ন পরিষদে বসে একজন জনপ্রতিনিধিকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করায় আমি তাঁদের শাসন করেছি। ’

শুক্তাগড় ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদে যা কিছু হয়েছে, তা নিয়ে বিচার-সালিস হতে পারত। ’


মন্তব্য