kalerkantho


গৃহবধূকে পিটিয়ে ছেলেকে নিয়ে পালিয়েছে স্বামী

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



যৌতুকের ১৫ হাজার টাকার জন্য এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে ১০ মাস বয়সী ছেলেকে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়েছেন এক বাবা। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির এ ঘটনার পর ছয় দিন পার হলেও মেলেনি ছেলে ও বাবার খোঁজ।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, দুই বছর আগে সোনাইডাঙ্গা গ্রামের শারমিন বেগমের সঙ্গে বড় হিজলী গ্রামের আব্দুল গফুরের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় কথামতো সাদেক খান ১৫ হাজার টাকা যৌতুক দেন। পরে তিনি আরো ১৫ হাজার টাকা দাবি করেন। এ কারণে অকারণে স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন। বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে শারমিন আদালতে গফুরের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। একাধিকবার গ্রাম্য সালিসের মাধ্যমে স্বামী-স্ত্রীর সংসার পুনরায় জোড়া লাগে। এরই মধ্যে তাঁদের সংসারে একটি ছেলের জন্ম হয়। গত ৯ মার্চ সকালে স্ত্রীকে বেধড়ক মারধর করে তাঁর বুক, পিঠসহ স্পর্শকাতর অঙ্গ জখম করেন। এ অবস্থায় ফেলে রেখে শিশুকে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান গফুর।

সেই থেকে সোমবার বিকেল পর্যন্ত সন্ধান মেলেনি তাঁদের।

এদিকে বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা শেষে গত রবিবার বিকেলে বাবার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে গৃহবধূকে। গতকাল দুপুরে তিনি বলেন, ‘শরীরের ক্ষত শুকালেও ব্যথা রয়ে গেছে। সন্তানকে ফিরে না পাওয়ায় অস্থির লাগছে। পারছি না ঘুমাতে ও খেতে। ’

প্রতিবেশী পল্লী চিকিৎসক কুদরত মোহাম্মদ মহব্বত মিয়া বলেন, ‘শারমিনের বাবা অত্যন্ত দরিদ্র একজন শ্রমিক। কোনো রকমে তাঁর সংসার চলে। সেখানে জামাতার যৌতুকের চাহিদা মেটানো তাঁর পক্ষে অসম্ভব। তবে জামাতা গফুর তা মানতে নারাজ। তার আরো ১৫ হাজার টাকা চাই-ই-চাই। যে কারণে সে শারমিনের ওপর বর্বর নির্যাতন চালিয়েছে এবং দুধের শিশুকে মায়ের বুক থেকে ছিনিয়ে নিয়ে আত্মগোপন করেছে। ’


মন্তব্য