kalerkantho


জামালপুরে সন্তানকে হত্যার পর মরতে চাইলেন মা

রাজবাড়ী ও রাঙ্গাবালীতে দুই লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



জামালপুরের ইসলামপুরে শিশুসন্তানকে গলা টিপে হত্যার পর এক মা আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার ডাকপাড়া গ্রামে গতকাল সোমবার ভোরে।

একই দিন পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে এক গৃহবধূর এবং রাজবাড়ীতে হাসপাতাল থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

জামালপুর : পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই গৃহবধূর স্বামী ঢাকায় থেকে কাজ করেন। গৃহবধূ সাত ও চার বছর বয়সী দুই সন্তানকে নিয়ে ডাকপাড়া গ্রামের বাড়িতে থাকেন। তাঁর সঙ্গে একই গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে আব্দুল মোমিন মেকারের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। গত রবিবার রাতে সন্তানদের নিজ ঘরে রেখে তিনি মোমিনের বাড়িতে যান। তখন ওই বাড়ির লোকজন তাঁকে লাঞ্ছিত করে। তিনি নিজ বাড়ি ফিরে ক্ষোভে গতকাল ভোরে চার বছর বয়সী মেয়েকে গলা টিপে হত্যা করেন। এরপর তিনি বিষপান করে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে তাঁর বাবা তাঁকে (গৃহবধূ) নিয়ে ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাঁকে জামালপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

ইসলামপুর থানার ওসি দীন ই আলম জানান, ঘটনাস্থল থেকে ওই শিশুর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পটুয়াখালী : গতকাল ভোরে রাঙ্গাবালী উপজেলার মাঝ নেতা গ্রাম থেকে গৃহবধূ মোর্শেদা বেগমের (৪০) লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি ওই গ্রামের মো. আইয়ুব হাওলাদারের স্ত্রী।

সূত্র জানায়, গত রবিবার রাতে শারীরিক অসুস্থতার জন্য মোর্শেদা বেগম তাঁর স্বামী আইয়ুবকে বাজার থেকে ওষুধ আনতে বলেন। কিন্তু আইয়ুব ওষুধ না আনায় অভিমান করে গতকাল সকাল ৬টার দিকে মোর্শেদা বেগম নিজ ঘরে বিষপানে আত্মহত্যা করেন।

রাঙ্গাবালী থানার ওসি শামসুল আরেফীন বলেন, ‘আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী পাঠিয়েছি। ’

রাজবাড়ী : সদর হাসপাতাল থেকে গতকাল দুপুরে জালাল (৫৫) নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় পুলিশ। তাঁর ঠিকানা পাওয়া যায়নি।

রাজবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদুল ইসলাম বলেন, গত ৫ মার্চ সকালে রাজবাড়ী সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের পেছনের রাস্তায় অসুস্থ অবস্থায় পড়ে ছিলেন জালাল। পরে আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলাম রাজবাড়ী শাখার নির্বাহী সদস্য শফিকুল ইসলাম জালালকে নিয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। তখন তিনি ওই ব্যক্তির নাম জালাল বলে জানতে পারেন। তবে তাঁর বাবার নাম ও ঠিকানা তিনি জানতে পারেননি। এক সপ্তাহ আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর গতকাল ভোরে জালালের মৃত্যু হয়। বিষয়টি শফিকুল ইসলাম সদর থানার পুলিশকে লিখিতভাবে জানান। পরে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় রাজবাড়ী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।


মন্তব্য