kalerkantho


সুন্দরবনে বনদস্যু র‌্যাব গোলাগুলি

বাহিনীপ্রধান জিয়াসহ আটক ৪

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জে র‌্যাব ও বনদস্যুদের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছে। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা বনদস্যু জিয়া বাহিনীর প্রধান জিয়াসহ চারজনকে আটক করেন।

ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব সদস্যরা দুটি ওয়ান শ্যুটারগান, দুটি পাইপগান ও ১৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে। গত রবিবার বিকেলে শ্যামনগর উপজেলার কাটেশ্বর খাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতদের সোমবার সকালে শ্যামনগর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা হলো জিয়াউর রহমান জিয়া, মিন্টু গাজী, মাসুম বিল্লাহ ও ইউনুচ আলী পঁচা।

র‌্যাব-৬-এর কমান্ডিং অফিসার খন্দকার  রফিকুল ইসলাম জানান, বনদস্যু জিয়া বাহিনী কাটেশ্বর খাল এলাকা অবস্থান করছে—এমন খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরা রবিবার বিকেলে সেখানে অভিযান চালান। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে বনদস্যুরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও এ সময় পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় ২০ মিনিট গোলাগুলির পর বনদস্যুরা পিছু হটে যায়। পরে সেখান থেকে দুটি ওয়ান শ্যুটারগান, দুটি পাইপগান ও ১৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

আটক করা হয় জিয়া বাহিনীর প্রধানসহ তার তিন সহযোগীকে। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাই ও সুন্দরবনে কর্মরত জেলেদের জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগ রয়েছে।

অপহরণের তিন দিন পর মুক্তিপণ দিয়ে ফিরে এসেছে ১০ জেলে অপহরণের তিন দিন পর সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জে কাঠেশ্বর এলাকা থেকে বনদস্যু রবিউল বাহনীর হাতে অপহৃত ১০ জেলে মুক্তিপণ দিয়ে ফিরে এসেছে। সোমবার সকালে তারা শ্যামনগরে ফিরে আসে। ফিরে আসা জেলেরা জানায়, গত ১০ মার্চ সুন্দরবনের কাঠেশ্বর এলাকা থেকে বনদস্যু রবিউল বাহিনী ১০ জেলেকে অপহরণ করে। তিন দিন আটক থাকার পর তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪০ হাজার করে টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয় বনদস্যুরা।

শ্যামনগর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য