kalerkantho


মোরেলগঞ্জে হামলা ভাঙচুর লুট

আহত ৭, অভিযুক্ত ৯ জন আটক

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে একটি মুদি দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলাকারীদের বেধড়ক মারধর ও লাঠিপেটায় নারী, প্রতিবন্ধীসহ সাতজন আহত হয়েছেন। খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামবাসী ধাওয়া দিয়ে হামলাকারীদের ৯ জনকে আটক করে পিটুনির পর থানা-পুলিশে দেয়। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার বিশারীঘাট এলাকায় হেলাল মাতবরের দোকানে এ হামলা হয়। হামলার প্রতিবাদে তাত্ক্ষণিকভাবে দোকান বন্ধ রাখেন বিশারীঘাটের ব্যবসায়ীরা।

আহতদের মধ্যে দোকানি হেলাল মাতবর (২৫), তাঁর মা পারুল বেগম (৫৫) ও বাবা আনোয়ার মাতবরকে (৭০) মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পারুল বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

আটকরা হলেন—মিরাজ ফকির (২২), মো. শামীম শেখ (১৮), হৃদয় মৃধা (১৮), পলাশ শেখ (১৯), মেহেদী হাসান রাজীব (২২), রকিব শেখ (১৮), সালাউদ্দিন শেখ (১৮), হানিফ খান (১৮) ও নাঈম হোসেন (১৮)। তাঁদের বাড়ি মোরেলগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে।

হেলাল মাতবর সাংবাদিকদের জানান, একটি মোবাইল ফোনসেট চুরির মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে মিরাজ ফকিরের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একদল সন্ত্রাসী শুক্রবার রাত ৯টার দিকে হেলালের দোকানে হামলা চালায়। তারা দোকানের ফ্রিজ, টেলিভিশনসহ বিভিন্ন মালপত্র ভাঙচুর করে।

বাধা দিলে হেলাল ও তাঁর মা-বাবাসহ সাতজনকে পিটিয়ে আহত করে। যাওয়ার সময় হামলাকারীরা দোকান থেকে ৯ হাজার টাকাসহ লক্ষাধিক টাকার মালপত্র লুটে নেয়।

মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাশেদুল আলম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। এ ঘটনায় হেলাল মাতবর থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলার আসামি হিসেবে আটক ৯ জনকে গতকাল শনিবার বাগেরহাট চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য