kalerkantho


রাজবাড়ী ও নড়াইলে সংঘর্ষ ভাঙচুর লুট, আহত ২৪

রাজবাড়ী ও নড়াইল প্রতিনিধি   

১১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের রহমতপুর গ্রামে গতকাল শুক্রবার সকালে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রী নিরুদ্দেশ হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু দিন ধরে এলাকায় উত্তাপ চলছিল। এর জের ধরে গতকাল শুক্রবার সকালে কয়েকজন ব্যক্তি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ রহমতপুর গ্রামের মোড়ে অবস্থান নেয়। এ সময় তারা ঘোষনা দেয়, পাশের খালকুলা গ্রামের লোকজনকে এ পথে যেতে দেওয়া হবে না। পরে এ পথ দিয়ে যাওয়ার সময় তারা খালকুলা গ্রামের মনিরুলকে গালাগাল করে। বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে খালকুলা গ্রামের মানুষ লাঠিসোঁটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। সংঘর্ষে দুই গ্রামের অন্তত ১৫ জন আহত হয়। আহতদের বালিয়াকান্দি ও মধুখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় একটি বাড়ির দুটি ঘর ও কম্পিউটার ভাঙচুর করা হয়েছে।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি জাহিদুল ইসলাম পিপিএম জানান, ওই ঘটনায় শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ জানানো হয়নি।

এদিকে নড়াইলের লোহাগড়ায় চর দৌলতপুর গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ ৯ জন আহত হয়েছে। এ সময় তিনটি বাড়ি ভাঙচুর করে ব্যাপক লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি থানায় মামলা করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ইতনা ইউনিয়নের পাংখারচর গ্রামের ইউপি সদস্য আকিদুল কাজী সমর্থিত লোকজনের সঙ্গে পাশের দক্ষিণ লংকারচর গ্রামের ফজর চৌধুরী সমর্থিত লোকজনের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়। ওই সংঘর্ষে আহত আশিক কাজী চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে এলে উভয় পক্ষে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে বৃহস্পতিবার বিকেলে চর দৌলতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান চলাকালে ইউপি সদস্য আকিদুল কাজীর নেতৃত্বে ৪০-৫০ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দক্ষিণ লংকারচর গ্রামের অন্য পক্ষের লোকজনের বাড়িতে হামলা চালানো হয়। এ সময় মূল্যবান আসবাবপত্র, স্বর্ণালংকার, টাকা, মোবাইল ফোন সেটসহ আটটি গরু লুট করে নিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।


মন্তব্য