kalerkantho


আট দফা বাস্তবায়নের দাবি

পৌর কাউন্সিলরদের কলমবিরতি

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সম্মানী ভাতার বৈষম্য দূর করাসহ আট দফা বাস্তবায়নের দাবিতে গতকাল বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের কলমবিরতি কর্মসূচি শুরু করেছেন পৌরসভার কাউন্সিলররা। একই দাবিতে কোনো কোনো পৌরসভার কাউন্সিলররা মানববন্ধন ও জনমত সৃষ্টির জন্য প্রচারপত্রও বিলি করেন। বাংলাদেশ পৌর কাউন্সিলর অ্যাসোসিয়েশন দেশব্যাপী কলমবিরতির ডাক দিয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে সেবাপ্রার্থী পৌরবাসী। সম্প্রতি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের জারি করা এক পরিপত্রে কাউন্সিলরদের সম্মানী ভাতা ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত পৌরসভায় আট হাজার টাকা, ‘খ’ শ্রেণির সাত হাজার ও ‘গ’ শ্রেণির ছয় হাজার টাকা ধার্য করা হয়। এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন কাউন্সিলররা। তাঁদের দাবিগুলো হলো মাসিক সম্মানী ভাতা সম্মানজনকভাবে বাড়ানো, সম্মান ও পদমর্যাদা নির্ধারণ, টেন্ডার কমিটির সভাপতি হিসেবে কাউন্সিলরদের নিয়োগ, পৌর পরিষদের সিদ্ধান্ত ব্যতিরেকে প্রকল্প গ্রহণ না করা, কর্মচারী নিয়োগ ও টেন্ডার আহ্বানসংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট বিধান, প্রকল্পের তদারকি ও প্রত্যয়নপত্র দেওয়ার বিধান, মন্ত্রণালয় থেকে পরিচয় প্রদান ও পৌরসভার নির্বাচন পদ্ধতি পরিবর্তন বাতিল। কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর : গাইবান্ধা : কলমবিরতিসহ গাইবান্ধা পৌরসভা ভবন চত্বরে মানববন্ধন করেন কাউন্সিলররা। মানববন্ধনে কাউন্সিলরদের মধ্যে বক্তব্য দেন জি এম চৌধুরী মিঠু, তানজিমুল ইসলাম পিটার, লাকি সুলতানা, সেলিনা আকতার রত্না, দিলরুবা পারভীন, কামাল আহমেদ, কামাল হোসেন, রকিবুল হাসান সুমন, মতলুবর রহমান, শহীদ আহমেদ, আব্দুল মতিন সেলিম প্রমুখ।

শেরপুর : সকাল থেকে শেরপুর পৌরসভা কার্যালয়ে কাউন্সিলররা কলমবিরতি শুরু করে তাঁদের কক্ষ ছেড়ে সভাকক্ষে অবস্থান নেন। এ সময় প্যানেল মেয়র আতিউর রহমান মিতুল কর্মসূচির বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং করেন।

তিনি বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের এ আন্দোলন চলবে। এদিকে পৌর কাউন্সিলরদের দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেছে পৌর কর্মচারী সংসদ। নকলা, নালিতাবাড়ী ও শ্রীবরদী পৌরসভার কাউন্সিলররাও কর্মসূচি পালন করেন।

রাজবাড়ী : তিনটি পৌরসভার কাউন্সিলররা কর্মবিরতি পালন শুরু করেছেন। বাংলাদেশ পৌরসভা কাউন্সিলর অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি কাজী মাহাতাব উদ্দিন তৌহিদ জানান, তাঁদের দাবি বাস্তবায়নে গত ৩০ জানুয়ারি রাজবাড়ী, গোয়ালন্দ ও পাংশা পৌরসভার কাউন্সিলররা বিক্ষোভ, মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হয়। ৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীতেও কর্মসূচি পালিত হয়েছে। কিন্তু সরকার এখনো তাঁদের দাবি পূরণ করেনি। এর আগে রাজবাড়ী পৌরসভা কার্যালয়ে কাউন্সিলরদের এক সংবাদ সম্মেলন হয়। এতে লিখিত বক্তব্য দেন অ্যাসোসিয়েশনের রাজবাড়ী শাখার আহ্বায়ক এ এফ এম শাহজাহান। অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নির্মল কৃষ্ণ চক্রবর্তীসহ কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামের তিনটি পৌরসভার কাউন্সিলররা কলমবিরতি কর্মসূচি পালন করছেন। সকালে কুড়িগ্রাম পৌরসভার কাউন্সিলররা তাঁদের অফিস ছেড়ে পৌরসভার সামনের ফটক বন্ধ করে দিয়ে অবস্থান নেন। সেখানে বক্তব্য দেন কাউন্সিলর রোস্তম আলী তোতা, মাসুদুর রহমান, আনিছুর রহমান প্রমুখ। পরে আট দফা দাবি আদায়ে জনমত সৃষ্টির জন্য সাধারণ মানুষের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেন কাউন্সিলররা।

পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ে পৌরসভার কাউন্সিলররা কর্মবিরতি শুরু করায় ভোগান্তিতে পড়েছে নাগরিকরা। পৌর কাউন্সিলর অ্যাসোসিয়েশন পঞ্চগড় শাখার সভাপতি ও পঞ্চগড় পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশরাফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক মাজেদুর রহমান চৌধুরী ইরান, কাউন্সিলর দিলখুশা বেগম প্রধান প্রমুখ তাঁদের দাবির বিষয়ে বক্তব্য দেন। ইসলামবাগ মহল্লার বাসিন্দা তাহেরুল ইসলাম বলেন, ‘জরুরিভাবে একটি ওয়ারিশান (উত্তরাধিকার) সনদ দরকার ছিল। কিন্তু পৌরসভায় এলাকার কাউন্সিলর না থাকায় নিতে পারিনি। ’ মেয়র তৌহিদুল ইসলাম বলেন, কাউন্সিলররা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করায় পৌরসভার কর্মকাণ্ডে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। কাউন্সিলরদের দাবি তিনি যৌক্তিক বলে মনে করেন। কাউন্সিলর দিলখুশা বেগম প্রধান বলেন, “আমরা জনগণকে ভোগান্তিতে ফেলতে চাই না। বাধ্য হয়ে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করেছি। ‘ক’ শ্রেণির পৌরসভা হিসেবে কাউন্সিলরদের সম্মানী ভাতা কমপক্ষে ২৫ হাজার টাকা করার দাবি জানাচ্ছি। ”


মন্তব্য