kalerkantho


কলাপাড়ায় মহিষের পাগলামি

নিয়ন্ত্রণে গুলি

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



পটুয়াখালীর কলাপাড়ার ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা গ্রামে শনিবার সন্ধ্যায় পাগলা মহিষ হামলা চালিয়ে আজাহার বিশ্বাস ও মিরাজ প্যাদা নামের দুই কৃষককে আহত করেছে। আহতদের মধ্যে আজাহারকে রাতে কলাপাড়া এবং মিরাজকে আমতলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মহিষটি ধানখালী গ্রামের ছালাম জমাদ্দারের। এটি নিয়ন্ত্রণে আনতে ওই গ্রামের অনুপ গাজী তাঁর ব্যক্তিগত বন্দুক দিয়ে পাঁচ রাউন্ড গুলি ছোড়েন। পরে আহত মহিষটি জবাই করে এর মাংস গ্রামবাসীর মধ্যে বিতরণ করেন মহিষের মালিক। প্রত্যক্ষদর্শী রাজিব গাজী জানান, মহিষটি রক্ত দেখে রেগে যায়। এ কারণে সেটি দিগ্বিদিক ছোটে এবং মানুষকে গুঁতো দিয়ে আহত করে। এটিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে না পেরে একপর্যায়ে অনুপগাজী তাঁর বন্দুক দিয়ে গুলি করেন।

আহত আজাহার বিশ্বাস জানান, ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা গ্রামে মেয়ের জামাই মো. জাকির হাওলাদারের বাড়ি বেড়াতে গিয়েছিলাম। দুপুরের খাবার খেয়ে পাশের টিয়াখালী ইউনিয়নের নিজ বাড়িতে আসার পথে সন্ধ্যার দিকে রেগে যাওয়া মহিষটি এসে তাঁকে গুঁতো দেয়। এতে মাথা, বুকসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান ক্ষত হয়।

পাগলা মহিষ ধানখালী গ্রামের মিরাজ প্যাদাকেও আহত করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা নিশ্চিত করেছেন।   অনুপ গাজী জানান, সালাম জমাদ্দারের মহিষটি পাগলামি শুরু করে। অবস্থা বেগতিক দেখে আমার লাইসেন্স করা বন্দুক দিয়ে সেটিকে পাঁচ রাউন্ড গুলি করি।


মন্তব্য