kalerkantho


প্রধান শিক্ষকের কোমর হাত পা ভাঙলেন ছাত্রীর চাচা

আড়াইহাজারে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

অন্যান্য   

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে বিদ্যালয়ে হামলা চালিয়ে প্রধান শিক্ষককে রড দিয়ে পিটিয়ে হাত, পা ও কোমর ভেঙে দিয়েছেন ওই ছাত্রীর চাচা। প্রধান শিক্ষক শাজাহান মিয়াকে (৫৫) ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল শনিবার সকালে ৬০ নম্বর পাঠানেরকান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হামলার ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে স্থানীয় শিক্ষক নেতারা দাবি করেছেন, ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির কোনো ঘটনা ঘটেটি। পূর্বশত্রুতার জেরে ওই শিক্ষকের ওপর হামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলার শিক্ষক সমাজে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

অভিযোগে জানা যায়, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ক্লাস চলাকালে ওই ছাত্রী অফিসকক্ষে ডাস্টার রেখে আসতে যায়। এ সময় তাকে শ্লীলতাহানি করেন প্রধান শিক্ষক শাজাহান মিয়া। ছাত্রীটি পরে বিষয়টি তার মা-বাবাকে জানায়। এরপর প্রধান শিক্ষক আর বিদ্যালয়ে আসেননি। ছাত্রীর আত্মীয়স্বজন প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়ে খোঁজাখুঁজি করে।

গতকাল সকালে প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে এসে তাঁর অফিসকক্ষে বসেন। পরে ওই ছাত্রীর চাচা দেলোয়ার হোসেন লোহার পাইপ নিয়ে এসে প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলা চালান। ছাত্রছাত্রীদের সামনেই তাঁকে পিটিয়ে হাত, পা ও কোমর ভেঙে দিয়ে অফিসে ফেলে যান দেলোয়ার। এরপর ছাত্রছাত্রীদের চিত্কারে আশপাশের লোকজন এসে প্রধান শিক্ষককে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে মাধবদী মেমোরি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটলে তাঁকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঘটনার বিষয়ে কথা বলতে মোবাইলফোনে যোগাযোগ করেও আহত প্রধান শিক্ষক ও অভিযুক্ত দোলোয়ারকে পাওয়া যায়নি।

আড়াইহাজার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন অভিযুক্ত দেলোয়ারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। তিনি বলেন, ‘মূলত পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলা করা হয়েছে। ’

আড়াইহাজার থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, বিদ্যালয়ে হামলার ঘটনায় গোপালদী পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। দেলোয়ারকে আটকের চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য