kalerkantho


নান্দাইল কৃষি ব্যাংক

ম্যানেজারকে সরাতে এমপি সেজে কর্তৃপক্ষকে ফোন

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কোনো দালালের মাধ্যমে নয়, সরাসরি কৃষকের হাতে ঋণ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছিলেন ব্যাংকের ম্যানেজার। দালালের শরণাপন্ন না হয়েও যে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়া যায় সহজ-সরল কৃষকদের মধ্যে এই প্রচার তিনি চালান গ্রামে গ্রামে ঘুরে। তাঁর এই উদ্যোগে আঘাত লাগে স্বার্থান্বেষী দালালগোষ্ঠীর। তারা ম্যানেজারকে সরাতে উঠেপড়ে লাগে। তারা ওই ম্যানেজারের বিরুদ্ধে নানা অপবাদ ছড়িয়েই ক্ষান্ত হচ্ছে না, ওপর মহলকে হাত করতে পাঁচ লাখ টাকার ফান্ড গড়েছে। সম্প্রতি এলাকার সংসদ সদস্যের ভুয়া পরিচয় দিয়ে ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ফোন করে ওই ম্যানেজারকে বদলির নির্দেশও দিয়েছে। ঘটনাটি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার। উপজেলার চণ্ডীপাশা নতুন বাজার বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক শাখা ম্যানেজার সুলতান উদ্দিনের বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে ওই দালালচক্র।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর সুলতান উদ্দিন নান্দাইল কৃষি ব্যাংক শাখায় মুখ্য কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন। দায়িত্বে এসেই তিনি পাল্টে দেন ব্যাংকের সব কার্যক্রম। ব্যাংককে দালালমুক্ত ঘোষণা করে ব্যাংকের সামনে সাঁটিয়ে দেন ব্যানার।

এর পর থেকে কৃষকরা সঠিক কাগজপত্র জমা দিয়ে চাহিদামতো ঋণ নিয়ে বাড়ি যাচ্ছেন। চণ্ডীপাশা, আচারগাঁও ও সাভার গ্রামের বেশ কয়েকজন কৃষক জানান, তাঁরা আগে ঋণ নিতে এসে দালালদের খপ্পরে পড়ে হয়রানির শিকার হয়েছেন। তিন মাস আগে নিজেরা এসে ঋণ নিয়ে গেছেন। তাঁদের কোনো টাকা-পয়সা দিতে হয়নি।

সুলতান উদ্দিন জানান, তিনি যোগদানের পর শাখাটিকে রক্ষায় স্বচ্ছতার মধ্য দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। বকেয়া আদায় করে যথাযথ কৃষকদের বাড়িতে গিয়ে ঋণ দিতে উদ্বুদ্ধ করছেন। দালালবিহীন ঋণ নেওয়া যায়—এ কথা প্রচার করতে তিনি ব্যাংকের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নির্দেশ দিয়েছেন। ‘সঠিক দলিল যাঁর, জমি তাঁর’—এ কথা সামনে রেখে তিনি ব্যাংকের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। যোগদানের শুরু থেকেই একটি সংঘবদ্ধ চক্র তাঁকে সরাতে প্রকাশ্যে ও আড়ালে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে।

সুলতান উদ্দিন সম্পর্কে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, ময়মনসিংহ বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার শেখ মাহমুদ কামাল জানান, তাঁর মোবাইল ফোনে নান্দাইলের সংসদ সদস্য পরিচয় দিয়ে একজন নির্দেশ দিয়েছেন ম্যানেজার সুলতান উদ্দিনকে বদলি করার জন্য। তা ছাড়া গত সপ্তাহে তাঁর কার্যালয়ে আসেন তিন ব্যক্তি। তাঁরা নিজেদের নান্দাইল আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা পরিচয় দিয়ে বলেন, নান্দাইল শাখার ম্যানেজার বিরোধী দল সমর্থিত। তিনি কৃষকদের চাহিদামতো ঋণ দিচ্ছেন না। অযথা হয়রানি করছেন।

নান্দাইলের সংসদ সদস্য মো. আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন গতকাল বলেন, ‘একটি সংঘবদ্ধ চক্র আমার নাম ব্যবহার করে এই অপকর্ম চালাচ্ছে। ’ ময়মনসিংহের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মো. সোলায়মান জানান, বিভিন্নভাবে সূত্রে জেনেছেন একটি চক্র ম্যানেজার সুলতানকে বদলি করাতে উঠেপড়ে লেগেছে।


মন্তব্য