kalerkantho


সুনামগঞ্জে এমপির বাসায় হামলা

যুবলীগ আহ্বায়কসহ ২৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের বাসভবনে গত বৃহস্পতিবার রাতে হামলার ঘটনায় হত্যাচেষ্টার মামলা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে ওই বাসভবনের কেয়ারটেকার সৈয়দ সুজন বাদী হয়ে সদর থানায় ২৮ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন। মামলায় পৌর কাউন্সিলর ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক আবাবিল নূরসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে আসামিরা লুটপাটসহ সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাঁর সুনামগঞ্জ শহরের ‘পায়েল পিউ’ বাসভবনে হামলা চালান। তাঁরা বাসা তালাবদ্ধ পেয়ে বাইরের ফটক, জানালা, কাচ, লাইটসহ বিভিন্ন স্থাপনা ভাঙচুর করেন। পরে তাঁরা মোটরসাইকেল শোডাউন করে চলে যান। এ সময় কেয়ারটেকার ও সংসদ সদস্য বাসায় ছিলেন না।

বৃহস্পতিবার রাতেই এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পৌর কাউন্সিলর ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক আবাবিল নূরসহ পাঁচজনকে আটক করে পুলিশ। আটক অন্যরা হলেন আরপিননগর এলাকার বশির মিয়া, মনির মিয়া, আসান মিয়া ও বিল্লাল চৌধুরী।

হামলার প্রতিবাদে রাতেই সংসদ সদস্যের নির্বাচনী এলাকা জামালগঞ্জ, ধর্মপাশা ও তাহিরপুরে বিক্ষোভ মিছিল করে তাঁর সমর্থকরা। এ ঘটনায় উত্তেজনা বিরাজ করায় শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপল জানান, সংসদ সদস্যের বাসায় যুবলীগের কেউ হামলা করেনি। প্রতিহিংসাবশত সংসদ সদস্য যুবলীগের কর্মীদের ঘটনায় জড়িয়েছেন।

সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, ‘যুবলীগ নেতা নামধারী কতিপয় সন্ত্রাসী, যাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে, তারা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়েছিল। আমি বাসায় না থাকায় রক্ষা পেয়েছি। ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি। ’

সদর থানার ওসি মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, প্রধান আসামিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য