kalerkantho


আশুগঞ্জে স্কুল কক্ষ, মান্দায় পুড়ল ঘর-পশু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে আগুন লেগে কাগজ ও আসবাব পুড়ে গেছে। অন্যদিকে নওগাঁর মান্দায় পুড়ছে বসতঘর এবং গরু ও হাঁস-মুরগি।

বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : আশুগঞ্জ উপজেলার তারুয়া শালুকপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে আগুন লেগে গুরুত্বপূর্ণ কাগজসহ আসবাব পুড়ে গেছে। গতকাল বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। খবর পেয়ে সদর ও আশুগঞ্জ থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রধান শিক্ষক এস এম বায়েজিদ জানান, সকাল ৬টার দিকে তিনি আগুন লাগার খবর পেয়ে স্কুলে ছুটে আসেন। ফায়ার সার্ভিসের দল আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও আসবাবসহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পুড়ে যায়। এতে ভবনেরও ক্ষতি হয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহনাজ পারভীন ও সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌসী বেগম বলেন, ‘কক্ষে থাকা দুটি সিলিং ফ্যান পোড়ার ধরন দেখে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, এটি দুর্ঘটনা। ’ এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

নওগাঁ : মান্দা উপজেলার বারিল্যা পূর্বপাড়া গ্রামে গত মঙ্গলবার রাতে আগুন লেগে পুড়ে গেছে দুটি বসতঘর। এ সময় চারটি গরুসহ বেশ কিছু হাঁস-মুরগি পুড়ে যায়। স্থানীয়রা জানান, রাতে মশার উপদ্রব থেকে গবাদি পশুকে বাঁচাতে গোয়ালঘরে কয়েল জ্বালিয়ে দেন গৃহকর্তা আব্দুর রাজ্জাক। কয়েল থেকেই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তে তা প্রতিবেশী সোনাভান বিবির বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। রাতেই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোল্লা এমদাদুল হক ব্যক্তিগতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার দুটিকে পাঁচ হাজার করে টাকা দেন। পরদিন বুধবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নুরুজ্জামান ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রেজাউল করিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।


মন্তব্য