kalerkantho


কমলনগরে কমিটির দ্বন্দ্বে মাদরাসা বন্ধ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কমলনগরে কমিটির দ্বন্দ্বে মাদরাসা বন্ধ

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার ফরাশগঞ্জ ফয়েজ  আম আলিম মাদরাসা পরিচালনা কমিটি গঠনের জের এবং প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের বিভিন্ন অনিয়ম ও অপসারণের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করে স্থানীয় লোকজন। তোপের মুখে পড়ে অধ্যক্ষের নির্দেশে বুধবার থেকে দুই দিনের জন্য মাদরাসা ছুটি ঘোষণা করা হয়।

গতকাল বুধবার সকালে চর লরেন্স বাজারে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরেও একই ঘটনায় বিক্ষোভ করা হয়। এ সময় অধ্যক্ষের অপসারণ ও নতুন কমিটি বাতিলের দাবি জানানো হয়।

রাকিব হোসেন, মো. ইসমাইল, ফারুক হোসেনসহ কয়েকজন জানান, বিভিন্ন অভিযোগে মাদরাসার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম অধ্যক্ষ আলী আকবরের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। এর জের ধরে সাবেক সভাপতির নাম বাদ দিয়ে মাদরাসার অধ্যক্ষ কৌশলে বহিরাগত ওলামা লীগ নেতা নামধারী আবদুল্লাহ আল ইস্রাফিলের নাম দিয়ে বর্তমান এমপির কাছ থেকে সুপারিশ নিয়ে তা শিক্ষা বোর্ডে জমা দেন।

সুপারিশ করা ব্যক্তিকে বোর্ড অনুমতি দেয়। সভাপতির পদ থেকে সাবেক এমপির নাম বাদ পড়ার পাশাপাশি অধ্যক্ষের অনিয়মের অভিযোগ এনে দুই দিন ধরে প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করা হয়।

গতকাল দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাদরাসার সব শ্রেণিকক্ষে তালা ঝুলছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কেউ উপস্থিত নেই।

তবে এ সময়  বাইরে জাতীয় পতাকা উড়তে দেখা যায়।

সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘মাদরাসাটি আমার বাবার গড়া। ৪১ বছর ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। অধ্যক্ষ প্রতিষ্ঠানের জমি বিক্রি করে এবং বিভিন্ন খাত থেকে টাকা আত্মসাত্ করেন। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ ও জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছি। এতে বর্তমান সংসদ সদস্যকে ভুল বুঝিয়ে বহিরাগত ওই ব্যক্তির নামে সুপারিশ দিয়ে বোর্ডে পাঠান অধ্যক্ষ। ’

এ ব্যাপারে মাদরাসা অধ্যক্ষ আলী আকবর বলেন, ‘বিক্ষোভের পর আমি দুই দিনের জন্য মাদরাসা বন্ধ ঘোষণা করেছি। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা সত্য নয়। সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম ব্যবস্থাপনা কমিটি থেকে বাদ পড়ার বিষয়ে আমার কোনো হাত নেই। ’

লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুন সাংবাদিকদের বলেন, ‘মাদরাসা অধ্যক্ষ তিন ব্যক্তির নাম নিয়ে এলে আমি ইস্রাফিলের জন্য সুপারিশ করি। ওই তালিকায় সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলামের নাম ছিল না। ’

এ ব্যাপারে কমলনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ চৌধুরী বলেন, মাদরাসার অধ্যক্ষ সংরক্ষিত ছুটি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। ছুটি হলে জাতীয় পতাকা উড়ছে কেন—এমন প্রশ্নের কোনো জবাব দিতে পারেননি তিনি।

মাদরাসা কমিটির সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইস্রাফিল নিজেকে কেন্দ্রীয় ওলামা লীগের (হেলালী গ্রুপ)

ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দাবি করে বলেন, ‘আমি বহিরাগত নই। চর লরেন্স ইউনিয়নের স্থায়ী

বাসিন্দা। নিয়মের মধ্য দিয়েই সব হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের কিছু লোক আন্দোলনের নামে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। ’

 


মন্তব্য