kalerkantho


ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু

কেশবপুরে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



যশোরের কেশবপুরে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় প্যারাডাইস ক্লিনিক বন্ধসহ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার উপজেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে মৃতের স্বজনরাসহ এলাকাবাসী। পরে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে স্মারকলিপি পেশ করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২২ ফেব্রুয়ারি উপজেলার আলতাপোল গ্রামের রাশিদুল ইসলাম লিটনের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী লাকি আক্তারকে প্যারাডাইস ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। সেখানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তিনি দ্বিতীয় সন্তানের (ছেলে) জন্ম দেন। তবে ক্লিনিকটির মালিক ডা. আব্দুল মান্নান বিশেষজ্ঞ ছাড়াই অস্ত্রোপচার করায় লাকির জরায়ু, পিত্তথলিসহ নাড়ি কাটা পড়ে। এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হলে পরদিন ২৩ ফেব্রুয়ারি তাঁকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাঁকে সেবা দিতে অপারগতা জানান চিকিৎসকরা। পরে লাকিকে ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সর্বশেষ গত সোমবার খুলনার গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় লাকির মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে তাঁর স্বজনসহ শত শত নারী-পুরুষ উপজেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে।

পরে তারা ইউএনও শরীফ রায়হান কবিরের কাছে স্মারকলিপি পেশ করে। এ সময় ক্লিনিকটি বন্ধসহ ডা. মান্নান, ম্যানেজার নজরুল ইসলাম বাবু ও কর্মচারী শামসুর রহমানের গ্রেপ্তারের দাবি জানায় বিক্ষুব্ধরা।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাবেক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. হেদায়েতুল ইসলাম জানান, ‘অস্ত্রোপচারের সময় রোগীর প্রচুর রক্তক্ষরণ হলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ আমাকে ডেকে নিয়ে যায়। রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে আমি তাঁকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দিয়ে চলে আসি। ’


মন্তব্য