kalerkantho


জাকির হত্যা মামলা

কুমিল্লায় একই পরিবারের পাঁচজনের যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



লাকসামের পশ্চিমগাঁও গ্রামের মোবাইল ফোন দোকানি জাকির হোসেন হত্যা মামলায় একই পরিবারের পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন কুমিল্লার আদালত। সোমবার কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক নূর নাহার বেগম শিউলী এ আদেশ দেন।

আসামিরা হচ্ছে লাকসাম সদরের পশ্চিমগাঁও গ্রামের বাবুল সাহা, বাবুল সাহার স্ত্রী গীতা রানী সাহা এবং তিন ছেলে মিঠুন সাহা, টুটুল সাহা ও শিমুল সাহা।

কুমিল্লা জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর কার্যালয়ের তথ্যসেবা কেন্দ্রের সূত্র ও মামলার বিবরণে জানা যায়, জাকির হোসেন আসামি টুকু সাহাকে ৫০ হাজার টাকা ধার দেওয়ার পর নির্ধারিত সময়ে পরিশোধ না করায় উভয়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। এর জের ধরে ২০১০ সালের ৬ নভেম্বর রাতে লাঠি ও রামদা নিয়ে ওত পেতে থাকে। জাকির হোসেন বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে আসামিরা তার ওপর হামলা ও ছুরিকাঘাত করে। পরে এলাকাবাসী জাকিরকে উদ্ধার করে প্রথমে লাকসাম হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। পথিমধ্যে রক্তক্ষরণ হয়ে জাকির হোসেনের মৃত্যু হয়।

এর পরদিন কুমিল্লার লাকসামের পশ্চিমগাঁও গ্রামের মো. কোরবান আলীর ছেলে মৃত জাকির হোসেনের বড় ভাই এরশাদ মিয়া খোকন বাদী হয়ে আটজনের নামে লাকসাম থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. আবুল বাশার তদন্ত করে আটজন আসামির মধ্যে তিনজনকে মামলার অভিযোগপত্র থেকে বাদ দেওয়া হয়।

অন্য পাঁচজনের বিরুদ্ধে ২০১১ সালের ৮ মার্চ অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ১১ জন সাক্ষীর মধ্যে ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।


মন্তব্য