kalerkantho


গোবিন্দগঞ্জে দোকানিকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা

মঠবাড়িয়ায় মিলল যুবকের লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে চায়ের দোকানদারকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

গাইবান্ধা : গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় চায়ের দোকানদার সিয়াম মিয়াকে (১৭) বালিশচাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে। গত শনিবার রাতে উপজেলার নাকাইহাট বন্দরে দোকানের ভেতরে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পরদিন রবিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে সিয়ামের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ব্যাপারে গোবিন্দগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। সিয়াম কুঞ্জমালঞ্চা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

পিরোজপুর (আঞ্চলিক): মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে যুবক হেলাল হাওলাদারের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল রবিবার সকালে লাশটি উদ্ধারের পর জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। মঠবাড়িয়া থানার ওসি খন্দকার মোস্তারাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

হেলাল উপজেলার লক্ষ্মণা গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে। পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সাত মাস আগে হেলাল বরগুনার বামনার চলাভাঙা গ্রামের নাসির উদ্দিনের মেয়ে ফারজানাকে বিয়ে করেন। কিন্তু ফারজানা স্বামীর বাড়িতে না এসে বাবার বাড়িতে বসবাস করতে থাকেন। স্ত্রীকে একাধিকবার নিজের বাড়িতে আনার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন হেলাল। এ নিয়ে কয়েক দিন ধরে তিনি মানসিক অস্থিরতায় ভুগছিলেন। গত শনিবার রাতে ঘরে রাখা চালের পোকা মারার ওষুধ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। দ্রুত তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকালে (রবিবার) তিনি মারা যান।


মন্তব্য