kalerkantho


মতিনকে চায় তৃণমূল ‘গলার কাঁটা’ ইভা

সুমন বর্মণ, নরসিংদী   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মতিনকে চায় তৃণমূল ‘গলার কাঁটা’ ইভা

নরসিংদী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের মৃত্যু বিভক্ত আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীকে এক কাতারে দাঁড় করিয়েছিল। কিন্তু জেলা পরিষদের উপনির্বাচন ঘিরে মাস না পেরোতেই বিভক্তি রেখা ফের স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। তফসিল ঘোষণার পর কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন প্রয়াত অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের বড় মেয়ে ডা. সায়মা আফরোজ ইভা। অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে প্রস্তাব করা হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞার নাম।

গত ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হন। ১ ফেব্রুয়ারি তিনি মারা গেলে পদটি শূন্য হয়। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন কমিশন নরসিংদী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। আজ সোমবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেওয়ার শেষ সময়।

সূত্র জানায়, ডা. সায়মা আফরোজ ইভার স্বামী নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু। নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূঞা স্টেডিয়ামে অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের জানাজায় মেয়ে ইভা বাবার অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে সবার দোয়া চান।

এর পরই স্থানীয় রাজনীতিতে বাবার উত্তরসূরি হিসেবে তাঁর নাম আলোচনায় আসে। একই সঙ্গে জেলার বিভিন্ন স্থানে আয়োজিত অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের শোকসভায় ইভার উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। সর্বশেষ তফসিল ঘোষণার পর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপনির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে ইভার নাম আলোচনায় আসে।

বাবার মতো মেয়ে ইভাকেও শুরু থেকে সমর্থন জোগাচ্ছেন সাবেক মন্ত্রী ও রায়পুরার সংসদ সদস্য রাজি উদ্দিন আহমেদ রাজু এবং শিবপুরের সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এ রকম প্রেক্ষাপটে ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কার্যালয়ে গত শনিবার ডা. সায়মা আফরোজ ইভার মনোনয়নপত্রের আবেদন জমা দেওয়া হয়।

গত নির্বাচনে দলীয় সমর্থন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হয়েছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞা। এবারের নির্বাচনেও তিনি দলীয় সমর্থন চেয়েছেন। স্থানীয় রাজনীতিতে তিনি পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম হীরুর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

জেলা আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত শনিবার বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভা হয়। ওই সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাহবুবুর রহমান ভূঞার সভাপতিত্বে জেলার শীর্ষস্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় ছয় নেতা আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ দেখান। তাঁরা হলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞা, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের মেয়ে ডা. সায়মা আফরোজ ইভা, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জি এম তালেব, ইঞ্জিনিয়ার শওকত আলী, সদস্য হারুনুর রশিদ খান ও অ্যাডভোকেট সামসুল হক।

সভা সম্পর্কে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির কার্যকরী সদস্য অ্যাডভোকেট এ বি এম রিয়াজুল কবীর কাওছার বলেন, নেতাকর্মীরা আলোচনা করে দলীয় মনোনয়নের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞার নাম কেন্দ্রের কাছে প্রস্তাব করেছে। এ ব্যাপারে দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।

অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের মেয়ে ডা. সায়মা আফরোজ বলেন, ‘বাবার ইচ্ছাগুলো পূরণ করতে চাই। মানুষ যেন বাবাকে ভুলে না যায়, তাই বাবার নামটাকে ধরে রাখতে চাই। প্রধানমন্ত্রী অনেক বিচক্ষণ। তিনি সবার খোঁজখবর রাখেন। আশা করি তিনি আগের মতো এবারও নরসিংদীবাসীর হৃদয়ের কথা উপলব্ধি করে আমাকে দলীয় সমর্থন দেবেন। ’

তবে প্রার্থিতার ব্যাপারে গণমাধ্যমে কথা বলতে চাননি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞা। তিনি জানান, দুই-এক দিনের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা হবে। রাজনীতিতে শেষ বলে কিছু নেই।


মন্তব্য