kalerkantho


সিদ্ধিরগঞ্জে সাত ভুয়া সাংবাদিক আটক

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে গত শুক্রবার রাতে সাতজনকে আটক করেছে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ। সিদ্ধিরগঞ্জের ফ্যামিলি ল্যাব হাসপাতালে চাঁদাবাজির মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

তারা হলো সিদ্ধিরগঞ্জের পশ্চিম সানারপাড়ের বাশারউদ্দিনের ছেলে মো. শাহাদাৎ হোসেন ভূইয়া, সোনারগাঁর কাঁচপুরের আব্দুস সালামের ছেলে নিশান, সিদ্ধিরগঞ্জের আটি ওয়াপদা কলোনির ইসয়াত আহাম্মেদের ছেলে আব্দুস সাত্তার মোল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জের সিআইখোলার অলি আহমেদের ছেলে মো. রাসেল, ফতুল্লার তল্লা এলাকার নূর মোহাম্মদের ছেলে মোহাম্মদ নুরুজ্জামান কাউসার, ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার এম এ হাশেমের ছেলে ফারুক আহমেদ ও মিজমিজি এলাকার আফাজউদ্দিনের ছেলে ফারুক হোসেন। এ ছাড়া পলাতক রয়েছে সানারপাড় এলাকার টিটু।

মামলার বাদী সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ডের ফ্যামিলি ল্যাব হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন ভূইয়া জানান, কিছুদিন ধরে কয়েক যুবক তাঁর প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের বিভিন্ন ধরনের হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করত। গত বুধবার রাত ৮টার দিকে শাহাদাৎ হোসেন ও টিটু হাসপাতালে গিয়ে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাঁকে দেখিয়ে দেবে বলে হুমকি দেয়। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে শাহাদাৎ, টিটু, নিশান, আব্দুস সাত্তার, রাসেল, নুরুজ্জামান কাউসার, ফারুক আহমেদ ও ফারুক হোসেন গিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তারা ভাঙচুর চালায় এবং ক্যাশ থেকে পাঁচ হাজার টাকা লুটে নেয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে সাতজনকে হাতেনাতে আটক করে। ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় টিটু।

গ্রেপ্তারকৃতদের কয়েকজন জানায়, শাহাদাত ও টিটু ছাড়া তারা কেউ এ রকম ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি সরাফতউল্লাহ বলেন, ‘এদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। পলাতক টিটুকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ’


মন্তব্য