kalerkantho


২১ ফেব্রুয়ারিতে ইংরেজি ও উর্দুতে বক্তৃতা ভাইরাল

পটুয়াখালী প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় ইংরেজি ও উর্দুতে দেওয়া বক্তৃতার একটি অডিও পটুয়াখালীতে ভাইরাল (দ্রুত ছড়ানো) হয়েছে। বাংলা ভাষার জন্য আয়োজিত সভায় ভিন্ন ভাষায় বক্তব্য দেওয়ার বিষয়টিকে নেতিবাচক মনে করেছে স্থানীয়রা। তারা ওই দুজনের শাস্তিও চেয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, পটুয়াখালী সদর উপজেলায় সাবিনা আক্তার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গত ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়। বিদ্যালয়ের মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান শিক্ষক মো. আবু তালেবের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আরো দুজন। তাঁদের মধ্যে বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সাবিনা আক্তারের ভাই মোল্লা মো. সিদ্দিকুর রহমান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উর্দুতে এবং প্রধান শিক্ষক বলেন ইংরেজিতে। ওই দুজন যখন বক্তব্য দেন তখন উপস্থিত শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী সবাই বিস্মিত হয়। সভাপতি হিসেবে প্রধান শিক্ষক আবু তালেব ছয় মিনিট ১৯ সেকেন্ড বক্তব্য দেন। এ সময় অন্য শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাঁকে বাংলায় বক্তব্য  দেওয়ার অনুরোধ করলে তিনি তা শোনেননি। বক্তৃতায় ইংরেজির ভুল ছিল। একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে কোনো কথা ছিল না।

একই তথ্যের পুনরাবৃত্তি ছিল।

আউলিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন শাহ আলম বলেন, ‘আমি ওখানে ওই দিন উপস্থিত ছিলাম না। কিন্তু ঘটনা শুনেছি। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলা ভাষার প্রতি আবু তালেব ও সিদ্দিকুর রহমান চরম অবজ্ঞা করেছেন। দুজনকে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত। ’

স্থানীয় বাসিন্দা আইনজীবী আব্দুল জলিল মোল্লা বলেন, ‘বাংলা ভাষার জন্য দেশের সন্তানরা ১৯৫২তে শহীদ হয়েছেন। সরকার এখন সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলনে যথেষ্ট আন্তরিক। এ ক্ষেত্রে একজন শিক্ষক হয়ে ভাষা দিবসের আলোচনায় ইংরেজিতে বক্তব্য রেখে মূলত জাতিকে অপমান করেছেন। ’

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মো. আবু তালেব বলেন, ‘আমি ইংরেজিতে বক্তব্য রাখিনি। বক্তব্যের মধ্যে দুই-একটি শব্দ ইংরেজি চলে আসতে পারে। ’ পুরো ইংরেজি বক্তব্যের অডিও রেকর্ড স্থানীয়দের মোবাইল ফোনসেটে সয়লাব শুনে তিনি বলেন, ‘এটা কিছু ষড়যন্ত্রকারী অপপ্রচার করতে পারে। ’ আরেক অভিযুক্ত সিদ্দিকুর রহমানের মোবাইল ফোনসেট বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া যায়নি।


মন্তব্য