kalerkantho


ধর্ষণ ও ভিডিও ছড়ানো মামলা

মণিরামপুরে তিনজন আটক

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



যশোরের মণিরামপুর উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্রীকে ধর্ষণ, এর ভিডিও ধারণ ও প্রচার মামলায় পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, গত ১২ ফেব্রুয়ারি দুপুর ২টার দিকে গণিত পরীক্ষা শেষে দুই ছাত্রী বাড়ি ফিরছিল।

পথে উপজেলার বেগারিতলার নিমতলায় চালকিডাঙ্গা গ্রামের এয়াকুব আলী, টুনিয়াঘরা গ্রামের ইসরাফিল আলম, আল-আমিন, ইমন হোসেন ও আলমগীর হোসেন তাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। পাঁচ বখাটে দুজনকে পাশের একটি বাগানে নিয়ে যায়। একজনকে এয়াকুব আলী যৌন নির্যাতন করে। ইসরাফিল আলমসহ অন্যরা আরেকজনের শ্লীলতাহানি করে। এ সময় শিক্ষার্থীরা বাধা দিতে গেলে বখাটেরা তাদের অস্ত্র দেখিয়ে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে তারা নির্যাতনের দৃশ্য ভিডিও করে রাখে। গত বুধবার বখাটেরা ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়াতে এলাকায় জানাজানি হয়। স্থানীয়রা বখাটেদের শনাক্ত করে ইয়াকুব আলী, ইমন ও আলমগীরকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে স্থানীয় ভোজগাতী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) কার্যালয়ে নিয়ে যায়। পরে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক তাদের পুলিশে সোপর্দ করে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে দুই মেয়ের বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের চালকিডাঙ্গা বাজারে মানববন্ধন করে।

মামলার তদন্তকারী মণিরামপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘বাকি আসামিদের খোঁজা হচ্ছে। ’


মন্তব্য