kalerkantho


ভুল চিকিৎসায় গর্ভের শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ

কেরানীগঞ্জে ক্ষুব্ধ জনতার ক্লিনিক ঘেরাও

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কেরানীগঞ্জের আটিবাজারে অবস্থিত ল্যাব ফোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া এক নারীর গর্ভের (পাঁচ মাস) শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার বিকেলে হাসপাতালটি ঘেরাও করে স্বজন ও এলাকাবাসী।

এ সময় হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গা ঢাকা দেয়। পরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে গিয়ে যথাযথ ব্যবস্থার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এক মাস আগে এ হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় একজন প্রসূতির মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সূত্র জানায়, শাক্তা ইউনিয়নের করিম হাজির গ্রামের গৃহবধূ শিরিন আক্তার দুই মাস আগে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা থাকা অবস্থায় হার্নিয়া রোগ নিয়ে ল্যাব ফোর জেনারেল হাসপাতালে আসেন। তখন ডা. ডি এম মহিদুজ্জামান টনি তাঁকে হার্নিয়া অপারেশনের পরামর্শ দেন। পরে মহিদুজ্জামান অপারেশন করেন। অপারেশনের আগে শিরিনের স্বজনরা আলট্রাসনোগ্রাম করার কথা বলেন। কিন্তু তিনি পুরনো আলট্রাসনোগ্রাম দেখে অপারেশন করেন। এরপর কাটা স্থান শুকানোর জন্য মহিদুজ্জামান এন্টিবায়োটিকসহ অনেক ওষুধ দিয়ে শিরিনকে বাসায় পাঠিয়ে দেন।

শিরিনের স্বামী রমজান আলী বলেন, মঙ্গলবার শিরিন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে রাজধানীর লালমাটিয়ায় সিটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, পেটের বাচ্চা মারা গেছে। পরে শিরিনের অপারেশন করে মৃত বাচ্চা বের করা হয়। রমজান অভিযোগ করেন, সিটি হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাঁকে জানিয়েছেন, ল্যাব ফোর জেনারেল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় পেটের বাচ্চা মারা যায়। এদিকে গত ২১ জানুয়ারি সাভার থেকে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ রাজিয়া সুলতানা হ্যাপী (২১) ল্যাব ফোর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বমিভাব ও মাথাব্যথার কারণে হ্যাপীকে ওই হাসপাতালে নিয়ে গেলে ভর্তি রেখে চিকিৎসকরা ইনজেকশনসহ নানা এন্টিবায়োটিক ওষুধ সেবন করান। রমজানের অভিযোগ, হাসপাতালের ভুল চিকিৎসায় হ্যাপী মারা গেছেন।

ল্যাব ফোর হাসপাতালের পরিচালক কবির হোসেন বলেন, ‘আসলে তদন্ত না করে তো বলা যাচ্ছে না যে ভুল চিকিৎসা হয়েছে। ’ হাসপাতালে প্রসূতি রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।

শাক্তা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন লিটন জানান, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই ক্লিনিকের লোকজন পালিয়ে যায়। পরে ক্ষুব্ধ জনতা সেখানে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এ ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে—এমন আশ্বাসে তারা শান্ত হয়।


মন্তব্য