kalerkantho


বিবস্ত্র করে শিক্ষক নির্যাতন

স্বরূপকাঠির ‘সন্ত্রাসী’ নয়ন গাজী গ্রেপ্তার

পিরোজপুর প্রতিনিধি   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে শিক্ষক বিধান চন্দ্র সরকারকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের প্রধান অভিযুক্ত ‘সন্ত্রাসী’ মনির ফেরদৌস ওরফে নয়ন গাজীকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার সকালে শিক্ষক নির্যাতন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হিসেবে তাকে পিরোজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। নয়নের গ্রেপ্তারের খবরে স্বস্তি প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) শাহাবউদ্দিন জানান, পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মো. ওয়ালিদ হোসেনের নির্দেশে গোপন সংবাদে গত মঙ্গলবার সকালে ঢাকার সাভারের সুভাপুর বাজার থেকে নয়ন গাজীকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত ৩ ফেব্রুয়ারি স্বরূপকাঠির মৈশানী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বিধান চন্দ্র সরকারকে প্রকাশ্যে রাস্তায় বিবস্ত্র করে নির্যাতন চালায় প্রায় দুই ডজন মামলার আসামি নয়ন গাজী ও তার বাহিনী। পরে তারা বিধান চন্দ্রকে ২৪ ঘণ্টা একটি ঘরে আটক রেখে অমানুষিক শারীরিক নির্যাতন করে। বাড়ি থেকে বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা এনে দিলে অন্য শিক্ষকদের মুচলেকার বিনিময়ে বিধান চন্দ্রকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হলে এলাকায় ও প্রশাসনে তোলপাড় হয়। ওই ঘটনায় মামলা হয় এবং নয়নের দুই সহযোগী মাইনুল ও সিদুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ আদালতে পাঠায়। তখন থেকে নয়ন পালাতক ছিল।

এলাকাবাসী জানায়, মৈশানী এলাকার নয়ন গাজী একটি সন্ত্রাসী বাহিনী তৈরি করে দীর্ঘদিন ধরে মৈশানী ও এর পাশের এলাকায় অত্যাচার চালায়।

পাশের ঝালকাঠি উপজেলার সন্ত্রাসীদের সঙ্গে নিয়ে অস্ত্র ও চাঁদাবাজি, মাদক বিক্রি ও সেবন, নারী নির্যাতন, মাঠে চড়ানো অন্যের গরু বিক্রি করে দেওয়া, ছাগল জবাই করে খাওয়াসহ নানা অপরাধ করে। এসব ঘটনায় নয়ন গাজী বারবার গ্রেপ্তার হলেও জামিনে মুক্ত হয়ে আবারও সে ও তার লোকজন একই তত্পরতা চালায়।


মন্তব্য