kalerkantho


গোপালগঞ্জে নবজাতকের লাশ

আরো চার জেলায় চালকসহ পাঁচজনের মরদেহ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গোপালগঞ্জে নবজাতক মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। চাঁদপুরে নদীতে নারী ও ঝালকাঠিতে খালে যুবকের লাশ পাওয়া গেছে।

অন্যদিকে ফরিদপুরের নগরকান্দা ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মাইক্রোবাসচালকসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

গোপালগঞ্জ : শহরের হোলিপ্যাড এলাকা থেকে নবজাতক মেয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ গতকাল বুধবার বিকেলে লাশটি উদ্ধার করে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম রেজা বলেন, ‘নিয়মানুযায়ী লাশ পৌর কবরস্থানে বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করা হবে। ’

ঝালকাঠি : সদর উপজেলায় খালে পাওয়া গেছে যুবক আল-আমিন মুন্সির লাশ। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলার নেছারাবাদ এলাকার দরজি বাড়ির পাশের খাল থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সদর হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আল-আমিন বরগুনার বামনার খোলপটুয়া গ্রামের হয়দার আলী মুন্সির ছেলে। পুলিশ জানায়, আল-আমিন তাঁর বাড়ি থেকে নেছারাবাদ এনএস কামিল মাদ্রাসা চত্বরে আয়োজিত বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে অংশ নিতে এসেছিলেন।

মাহফিলে আসা মুসল্লিরা গতকাল ফজরের নামাজ আদায়ের জন্য খালটিতে ওজু করতে গেলে তাঁর লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। ঝালকাঠি থানার এসআই মো. শাহ জালাল জানান, আল-আমিনের চোখের ওপর জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

চাঁদপুর : শহরের পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় মেঘনা নদী থেকে অজ্ঞাতপরিচয় নারীর গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় মামলা করেছে।

ফরিদপুর : নগরকান্দা উপজেলার কুঞ্জনগর গ্রামের রামনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশের গমখেত থেকে মাইক্রোবাসচালক মো. শাহজাহান শেখের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে লাশটি উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। আগের দিন মঙ্গলবার রাতে শাহজাহান এলাকার সালিসে যাওয়ার পর আর বাড়ি ফেরেননি। গাইবান্ধা : গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় যুবকসহ দুজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিজ নিজ বাড়ি থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁরা হলেন হিয়াতপুর গ্রামের জগাই মণ্ডলের (মৃত) ছেলে গৌর মণ্ডল ও সাপগাছি গ্রামের আবুল বাদশা মিয়ার ছেলে মিনারুল শেখ। তাঁদের মধ্যে গৌর গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আর মিনারুল কীটনাশক পান করলে তাঁর মৃত্যু হয়।


মন্তব্য