kalerkantho


আ. লীগে উত্তেজনা

শহীদ দিবসে লাঠি মিছিল জলঢাকায়

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নীলফামারীর জলঢাকায় গতকাল মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসে পৌর আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ‘প্রতিহতের উদ্দেশ্যে’ লাঠি মিছিল করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

এ ঘটনার পর থেকে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শহীদ দিবস পালন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও পৌর আওয়ামী লীগ পৃথকভাবে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়। এ নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। সংঘর্ষ এড়াতে গত সোমবার উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন দুপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে সমঝোতার চেষ্টা চালায়। কিন্তু সমঝোতা হয়নি। গতকাল সকাল থেকে বিভিন্ন ইউনিয়নের কর্মীরা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আনছার আলী মিন্টুর ডালিয়া রোডসংলগ্ন সৈনিক লীগ অফিসে জড়ো হতে থাকে।

অন্যদিকে পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জড়ো হয় পৌর আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে। সকাল ১১টার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা লাঠির মাথায় কালো কাপড় বেঁধে বিভিন্ন স্লোগানে শহরে মিছিল করে। পুলিশ লাঠি ছাড়া মিছিল করতে বললেও তা উপেক্ষা করা হয়।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলির পর দেওয়া হয় নিজ দলের স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে কটূক্তিপূর্ণ বক্তব্য। সেখানে বিএনপি নেতারাও আনছার আলী মিন্টুর সমাপনী বক্তব্যের আগে বক্তব্য দেন। এ নিয়ে উপজেলায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মজিদ নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘দলের উপজেলা কমিটির কিছু নেতাকর্মীর জন্য রাজনীতিসহ সরকারের সব উন্নয়ন আজ প্রশ্নবিদ্ধ। জনসমর্থন হারিয়ে তারা বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নিজ দলীয় এমপির বিষোদগারে লিপ্ত হয়েছে। ’

সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা তাঁর বিরুদ্ধে দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে বলেন, ‘একটি মহল সরকারের সব উন্নয়নকাজের সমালোচনা করে ভিন্ন দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে। ’

লাঠি নিয়ে মিছিল প্রসঙ্গে আনছার আলী মিন্টু বলেন, ‘আমরা সামনের কাতারে থাকায় পেছনে কার হাতে কী ছিল জানি না। ’ বিএনপি নেতাদের উপস্থিতির বিষয়ে তিনি বলেন, তাঁরা এখন বিএনপি করেন না।

জলঢাকা থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান বলেন, আওয়ামী লীগের দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে।


মন্তব্য