kalerkantho


নাসিরনগর ও তিতাসে সংঘর্ষে আহত ৪০

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও দাউদকান্দি (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পূর্বশত্রুতা ও পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে একই গোষ্ঠীর দুই পক্ষের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৪০ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার চাতলপাড় ইউনিয়নের ইছাপুরা গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ইছাপুর গ্রামের প্রয়াত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ইদ্রিস মিয়ার গোষ্ঠীর দুই পক্ষের মধ্যে জমি ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। সম্প্রতি ওই গোষ্ঠীর একিন আলীর পক্ষের ইয়াছিন মিয়ার কাছ থেকে টাকা ধার নেন আক্কাছ মিয়ার পক্ষের ফাইজুর। বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ আরো চাঙ্গা হয়ে ওঠে। মঙ্গলবার সকালে এলাকার লোকজন বিষয়টি মীমাংসার জন্য আলোচনায় বসে। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

চাতলপাড় ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার (সদস্য) মো. আলী আক্কাছ বলেন, ‘টাকা পাওনার বিষয়টি মীমাংসার জন্য উভয় পক্ষ রাজি হয়। আমরা মঙ্গলবার সকালে এ নিয়ে আলোচনায় বসে বৃহস্পতিবার সালিস বৈঠক আহ্বান করি। এরই মধ্যে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। ’

নাসিরনগর থানার ওসি মো. আবু জাফর জানান, পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধে একই গোষ্ঠীর দুটি পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

এদিকে কুমিল্লার তিতাসে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার মৌটুপী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় নির্মাণ শ্রমিক মুসা ও মিরাজের মধ্যে দেনা-পাওনা নিয়ে ঝগড়া হয়। পরে মুসার চাচাশ্বশুর প্রবাসী ছবির মিয়া বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আলোচনায় বসেন। এ সময় স্থানীয় ইসলাম মেম্বারের লোকজন ছবিরের ওপর হামলা চালায়। পরে ছবিরের লোকজন এসে তাদের ধাওয়া করে। এ নিয়ে উভয় পক্ষে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে দুই পক্ষই দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। খবর পেয়ে পুলিশ গেলে সেখানে পুলিশের উপস্থিতিতেই দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি হামলা চালায়। তাতে উভয় পক্ষের অন্তত পাঁচজন আহত হয়। তাদের তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসকের পরামর্শে এর মধ্যে তিনজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

তিতাস থানার এসআই কমল মালাকার জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষই মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।


মন্তব্য