kalerkantho


শাবিপ্রবির ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের অভিযোগ

শিক্ষার্থী-এলাকাবাসী সংঘর্ষ, আহত ১০

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের জেরে এলাকাবাসীর সঙ্গে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, রবিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের ‘আড্ডা স্ন্যাকস’ ফ্লেক্সিলোড করতে গেলে লিমন ও মোস্তাক নামে দুই বহিরাগত বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে। বিষয়টি ওই ছাত্রী তাঁর পরিচিত কয়েকজনকে জানালে তাঁরা লিমন ও মোস্তাকের সঙ্গে কথা বলতে যান। কথা বলার একপর্যায়ে মোস্তাক এক শিক্ষার্থীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। একপর্যায়ে বিষয়টি হাতাহাতি ও সংঘর্ষে রূপ নেয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে। ঘণ্টাখানেক সড়ক অবরোধ করলে এলাকাবাসী ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সেখান থেকে তাদের সরিয়ে দেয়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ককটেল ছোড়াছুড়ির ঘটনা ঘটে।

পরে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে অবস্থান নেয়। পরে এলাকাবাসী ককটেল ফাটালে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও ফাঁকা গুলি ছুড়লে পিছু হটে তারা। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আমিনুল হক ভূঁইয়া ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। শিক্ষার্থীরা মোস্তাক ও লিমনের গ্রেপ্তার এবং উপযুক্ত শাস্তি না হলে পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত করবে বলে উপাচার্যকে জানান। উপাচার্য ‘শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আছেন’ বলে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

এ সময় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তারা আমাদের সঙ্গে যে আচরণ করেছে ও ইটপাটকেল-ককটেল মেরেছে তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। ’

একপর্যায়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি উত্তেজিত শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন এবং সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের সঙ্গে কথা বললে তারা বিষয়টি সঠিক নয় বলে দাবি করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. মুনশী নাসের ইবনে আফজাল বলেন, ভুক্তভোগীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এলাকার প্রভাবশালী লোকদের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।


মন্তব্য