kalerkantho


ব্রাহ্মণবাড়িয়া মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন

সভাপতিপক্ষ সরব সম্পাদক নীরব

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সম্মেলন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। সংগঠনের জেলা সভাপতি ২৬ ফেব্রুয়ারি সম্মেলন করতে অনড়। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক বলেন, সম্মেলন সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। সম্মেলন ইস্যুতে দুই পক্ষ দুই মেরুতে অবস্থান নিয়েছে। সম্মেলন পেছানোর দাবি জানিয়ে গত শনিবার বিকেলে দলের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতির কাছে একটি আবেদন করেছে সম্পাদকের নেতৃত্বাধীন পক্ষটি। অন্যদিকে সভাপতির নেতৃত্বাধীন পক্ষ রবিবার থেকে সম্মেলন অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু করেছে।

জানা গেছে, ১৯৯৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি সম্মেলনের মাধ্যমে মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় কমিটি ওই বছরের ১৮ মার্চ ৪৫ সদস্যের কমিটির অনুমোদন দেয়। যদিও গঠনতন্ত্র অনুসারে ৫১ সদস্যের কমিটি হওয়ার কথা। ওই কমিটি গঠনের পর থেকেই বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ ওঠে। এ অবস্থায় প্রায় ১৯ বছর পর আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে বলে সভাপতির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

এদিকে গত শনিবার বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির কাছে সম্মেলন পেছানোর জন্য লিখিত আবেদনে জানানো হয়। লিখিত আবেদনে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, কসবা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা শাহীন সুলতানা, বিজয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দা নাখলু আক্তার, সাধারণ সম্পাদক ফয়জুন নাহার টুনি, নবীনগর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপিকা নুরুন্নাহার বেগম, আশুগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেহেনা বেগম, সাধারণ সম্পাদক জোত্স্না বেগম, আখাউড়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পিয়ারা বেগম পিওনা, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারা বেগম, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা আক্তার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীমা আক্তার, সাধারণ সম্পাদক নাজমুন নাহার স্বাক্ষর করেন। আবেদনপত্রে মহিলা আওয়ামী লীগ নেতারা আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চের মধ্যে যেকোনো সুবিধাজনক সময়ে সম্মেলন করার দাবি জানান।


মন্তব্য