kalerkantho


লালমনিরহাট জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর

বকেয়া ঘুষ না পেয়ে পিয়নকে পিটুনি

লালমনিরহাট প্রতিনিধি   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের লালমনিরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে পিয়ন (এমএলএসএস) হিসেবে চাকরি করতেন। সম্প্রতি তিনি বদলি নিয়ে নিজ উপজেলা হাতীবান্ধা প্রকৌশলীর কার্যালয়ে চলে যান।

তবে এ বদলির জন্য জেলা নির্বাহী প্রকৌশলীর সঙ্গে ১০ হাজার টাকা ঘুষের চুক্তি হয়েছিল। যার মধ্যে তিনি তিন হাজার টাকা আগাম দিয়েছিলেন। বাকি টাকা বদলির পরে দেওয়ার কথা ছিল।

জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী বাদশাহ মিয়া বকেয়া টাকা না পেয়ে নিজ কার্যালয়ে গত শুক্রবার রাতে পিয়ন অনিল চন্দ্র সরকারকে (৩০) পিটিয়েছেন। আহতকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি হাতীবান্ধার দক্ষিণ গড্ডিমারী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা গুরুচরণ চন্দ্রের ছেলে।

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে কাঁদতে কাঁদতে অনিল বলেন, ‘শনিবার লালমনিরহাটের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শনে মন্ত্রী আসার কথা। অনেক কাজের চাপ রয়েছে। সেই কাজে সাহায্য করার কথা বলে আমাকে হাতীবান্ধা থেকে লালমনিরহাট ডেকে আনেন নির্বাহী প্রকৌশলী।

শুক্রবার বন্ধের দিন হলেও গভীর রাত পর্যন্ত আমাকে কাজও করতে হয়। কাজ শেষে ঘুষের টাকার জন্য প্রথমে আমার মা—বাবা তুলে গালাগাল শুরু করেন। অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে ঘুষের সাত হাজার টাকা দিতে দেরি হচ্ছে। একপর্যায়ে আমার গলা চেপে ধরেন প্রকৌশলী। পরে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে লাথি মারার পাশাপাশি পেটাতে থাকেন। আমার চিত্কারে লোকজন ছুটে না এলে হয়তো মেরেই ফেলতেন। ’ লালমনিরহাট জনস্বাস্থ্য নির্বাহী প্রকৌশলী বাদশাহ্ মিয়ার কার্যালয়ে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তাঁর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলে তিনি রিসিভ না করে সেটি বন্ধ করে রাখেন। লালমনিরহাট সদর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম গতকাল শনিবার বিকেলে বলেন, ‘কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। তবে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ’


মন্তব্য