kalerkantho


সৌদিতে বিক্রি হয়ে যাওয়া গৃহপরিচারিকা উদ্ধার, গ্রেপ্তার ২

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার এক মেয়ে গত বছরের ৬ ডিসেম্বর গৃহপরিচারিকার চাকরি নিয়ে সৌদি আরবের দাম্মামে যায়। সেখানে দালালরা তাকে বিক্রি করে দেয়। তাকে যৌন নির্যাতন করা হতো। এই পাচারচক্রের দুজনকে আটক করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। এর মধ্যে একজন সৌদি দালাল। গতকাল বৃহস্পতিবার মেয়েটিও উদ্ধার হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দালালরা টাকার বিনিময়ে মেয়েটিকে তিন দিনের জন্য একজন আরব নাগরিকের কাছে ভাড়া দেয়। তখন শুরু হয় তার ওপর নির্যাতন। বিষয়টি টেলিফোনে মা-বাবাকে জানায়। তার পরিবার স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ নেতাদের কাছে যায়। নেতারা মামলা করতে বলেন।

মামলার পর দালালচক্র বেপরোয়া হয়ে ওঠে। মেয়েটির কাছ থেকে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। পরে কোনো উপায় না পেয়ে মেয়ের মা-বাবা ছুটে আসেন হবিগঞ্জ ও সিলেট জেলার সংরক্ষিত সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর কাছে।

কেয়া চৌধুরী বলেন, ‘গত সোমবার রাতে মেয়েটির মা-বাবা আমার কাছে আসেন। টেলিফোনে রেকর্ড হওয়া মেয়েটির কথা শুনে আমি আঁতকে উঠি। মঙ্গলবার নবীগঞ্জ থানায় মামলা হয়। বিষয়টি নিয়ে আমি পররাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পরিকল্পনামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলি। পরে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্রের পরামর্শে ঢাকায় সিআইডির সঙ্গে যোগাযোগ করি। সিআইডি কর্মকর্তা শাহ আলম বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকার রিক্রুটিং এজেন্সি গ্রিনবাংলার মালিক জাকির হোসেন পাটোয়ারিকে গ্রেপ্তার করেন। পাচারের অপেক্ষায় থাকা আরেক মেয়ে উদ্ধার হয়। জব্দ করা হয় ২৫টি পাসপোর্ট, রেজিস্টার খাতা ও মোবাইল নম্বর। পাশাপাশি সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস সিআইডির সহায়তায় কল্পনাকে উদ্ধার করে সেখানকার দালালকেও গ্রেপ্তার করে। সৌদি আরবে পাচার হওয়া আরো ১৯ কিশোরীর সন্ধান চালাচ্ছে সিআইডি। ’


মন্তব্য