kalerkantho


‘রক্তপিপাসু বাবাকে আর চাই না’

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



‘রক্তপিপাসু বাবাকে আর চাই না’

গৃহবধূ হাসিকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টায় গ্রেপ্তার স্বামী রিপনের বিচার ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে গতকাল বগুড়া শহরের সাতমাথায় এলাকাবাসী মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে প্ল্যাকার্ড হাতে হাসির দুই শিশুসন্তান ফাহাদ ও ফারিয়া। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘মাদকাসক্ত রক্তপিপাসু বাবাকে আর চাই না। ’ হিংস্র বাবার বিচার চেয়ে বৃহস্পতিবার বগুড়া শহরের সাতমাথায় এরকমই প্ল্যাকার্ড হাতে মানববন্ধনে দাঁড়িয়েছিল মনিকা শারমিন হাসির দুই শিশুসন্তান ফাহাদ ও ফারিয়া। ফাহাদের সামনেই মা হাসিকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে বাবা আবু নাসের ইলিয়াস রিপন। সেই রাতের বাবার নিষ্ঠুর আচরণ মেনে নিতে পারছে না শিশুমন। হাসিকে রামদার ১৬ কোপ দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করার মামলায় রিপন গ্রেপ্তার হয়েছে। অন্যদিকে ১৬ দিন ধরে হাসি পড়ে আছে হাসপাতালের বিছানায়। তাঁর অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হাসি সুস্থ হয়েছে বলার সময় হয়নি। তাঁর শরীরে জটিল অস্ত্রোপচার প্রয়োজন। কিন্তু শারীরিক অক্ষমতার কারণে সেটি করা যাচ্ছে না। তবে আর কখনো হাসি স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারবে কি না, সে ব্যাপারেও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে শিবগঞ্জ থানার ওসি শাহীদ মাহমুদ জানান, রিপনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বৃহস্পতিবার আদালতের কাছে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হয়েছে। বর্তমানে রিপন ও তার বাবা হবিবর রহমান জেলহাজতে রয়েছে।

এলাকাবাসী হান্নান জানান, ‘পুলিশ শেষ পর্যন্ত রিপনকে গ্রেপ্তার করেছে। এটা প্রশংসার দাবি রাখে। এখন আমরা চাই আদালত যেন বিচারকাজ সুষ্ঠুভাবে করে। আর পুলিশের কাছে দাবি দ্রুত মামলাটির অভিযোগপত্র দিয়ে অপরাধীর বিচার করা হোক।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নিউরো সার্জন ডা. সুশান্ত পাল বলেন, ‘হাসির পেট ও মাথার আঘাতের ইনফেকশন কাটেনি। তাঁর অবস্থা এখনো ঝুঁকিপূর্ণ। অবস্থার উন্নতি হলে আরো দুটি জটিল অপারেশন করতে হবে। ’


মন্তব্য