kalerkantho


মিরপুরে আসামি, মান্দায় ছাত্রের বস্তাবন্দি লাশ

তিন স্থানে আরো দুই খুন, এক মরদেহ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কুষ্টিয়ার মিরপুরে হত্যা মামলার আসামির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নওগাঁর মান্দায় স্কুল ছাত্রের বস্তাবন্দি ও মেহেরপুর সদরে গৃহবধূর মরদেহ পাওয়া গেছে।

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় নববধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। কুমিল্লার চান্দিনায় যুবক খুন হয়েছেন।

নওগাঁ : মান্দা উপজেলায় স্কুল ছাত্র মুরাদ হোসেনের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার বিলকরিল্লা গ্রামের নির্জন রাস্তা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মুরাদের সত্মা মোছা. অঞ্জনাকে আটক করেছে পুলিশ। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মুরাদ বিলকরিল্লা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল। ১০ বছর আগে তার মাকে তালাক দেন বাবা আব্দুর রাজ্জাক। ঘটনার সময় রাজ্জাক গ্রামের বাইরে ছিলেন।

কুষ্টিয়া : মিরপুর উপজেলার আলোচিত সাবু ডাক্তার হত্যা মামলার আসামি ফজলুর রহমান ওরফে কসাই ফজলুর লাশ পাওয়া গেছে।

খবর পেয়ে গতকাল বুধবার সকালে কুমারখালী উপজেলার চড়াইকোল রেলগেটের পাশ থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ। কসাই ফজলু চরমপন্থী দলের সদস্য ও পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ছিলেন। তাঁর বাড়ি মিরপুরের আমবাড়িয়া গ্রামে। কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমান জানান, তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কুমিল্লা : পাঁচ টাকা ভাড়া কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালকের ছুরিকাঘাতে যুবক মাসুম খুন হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার দুপুরে চান্দিনা উপজেলার মাইজখাঁর গ্রামে। এ সময় মাসুমের বড় ভাই মাসুদ ও একই গ্রামের সাঈদ আহত হয়েছে। চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিরউদ্দিন মৃধা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মেহেরপুর : সদর উপজেলার হরিরামপুর গ্রামে গৃহবধূ টুম্পা খাতুনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার সকালে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পারিবারিক কলহের জেরে টুম্পা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে। তবে স্বজনদের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁকে হত্যা করে মুখে বিষ ঢেলে দিয়েছে। স্থানীয়রা জানান, বছরখানেক আগে কুলবাড়িয়া গ্রামের আনারুল ইসলামের মেয়ে টুম্পা খাতুনের সঙ্গে হরিরামপুর গ্রামের রহিত আলীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে দাম্পত্য কলহ সৃষ্টি হয়। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় টুম্পা বিষপান করেন। তাঁকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তবে টুম্পার ফুফু আদরী খাতুন অভিযোগ করেন, শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রায়ই তাঁকে নির্যাতন করত। টুম্পাকে তারা মেরে ফেলে মুখে বিষ ঢেলে দিয়েছে।

ফরিদপুর : আলফাডাঙ্গা উপজেলায় নববধূ ইনসানা আক্তার শান্তকে নির্যাতন করে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার জয়দেবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ রাতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। গত ৩১ জানুয়ারি জয়দেবপুরের জয়নুল খানের সঙ্গে শান্তর পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছিল।


মন্তব্য