kalerkantho


অবৈধভাবে বালু তোলা বন্ধ করল সোনারগাঁ প্রশাসন

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের ইমানেরকান্দি এলাকায় অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলন ও ব্যবসা বন্ধ করল উপজেলা প্রশাসন। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ অবৈধ বালু ব্যবসা বন্ধ করেন।

এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের ইমানেরকান্দি এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদে ড্রেজার বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছেন ওই এলাকার যুবলীগকর্মী নামধারী ডালিম মিয়া, আইয়ুব আলী, কাসেম মিয়া ও দেলোয়ার হোসেন। এতে ওই এলাকায় শতাধিক বিঘা কৃষিজমি, স্কুল, মসজিদ ও রাস্তাঘাট ভাঙনের কবলে পড়ে। সিন্ডিকেটটি কয়েক মাস ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। অবশেষে গতকাল সোমবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে ড্রেজার ও পাইপ নষ্ট করে বালু ব্যবসা বন্ধ করা হয়।

জানা যায়, উপজেলার নাজিরপুর গ্রামের বাবুল হোসেন ও নুর নবীর ছত্রচ্ছায়ায় ডালিম মিয়ার নেতৃত্বে এ অবৈধ ব্যবসা চলছিল। এ কারণে ওই গ্রামের একটি মসজিদ, ইমানেরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কিছু ভাঙনের কবলে পড়েছে।

ওই এলাকার কৃষক আমান উল্লাহ ও আবদুল বাতেন বলেন, ‘আমাদের জমির পাশ থেকে অবৈধভাবে মাটি কেটে নিলেও আমরা প্রতিবাদ করতে পারছি না। উল্টো তারা আমাদের বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখায়। ’

তবে ডালিম হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন দাবি করেন, তাঁরা ব্যক্তিগত জমি ভরাট করার জন্য নদী থেকে বালু উত্তোলন করছেন।

সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম নান্নু ও যুগ্ম আহ্বায়ক আলী হায়দার বলেন, ডালিম ও দেলোয়ার নামে যুবলীগের কমিটিতে কেউ নেই। যুবলীগের নাম ভাঙিয়ে কেউ অপকর্ম করলে তাদের বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনুর ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আবারও এ কাজের চেষ্টা করা হলে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।


মন্তব্য