kalerkantho


ফরিদপুরে আ. লীগে হামলা-পাল্টাহামলা

আমতলীতে শ্রমিক সংঘর্ষে আহত ২০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর ও বরগুনা প্রতিনিধি   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ফরিদপুরের বোয়ালমারীর ময়না ইউনিয়নের বেলজানি গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে হামলা-পাল্টাহামলায় ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার সন্ধ্যা থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত কয়েক দফায় এ হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ময়না ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আ. লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন মাতুব্বরের সঙ্গে সম্প্রতি আওয়ামী লীগে যোগদানকারী জিন্নাহ মাতুব্বরের বিরোধ চলছিল। রবিবার সন্ধ্যায় আলাউদ্দিন মাতুব্বরের সমর্থক সোহেলসহ ১০-১২ জন জিন্নাহ মাতুব্বরের সমর্থক সাগর মোল্লাকে বেলজানি গ্রামের বটতলা এলাকায় মারধর করে তাঁর মোটরসাইকেলটি নিয়ে যায়। সাগরকে আহত অবস্থায় বোয়ালমারী স্বাস্থ্য উপজেলা কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল কর্মকর্তা মো. এনামুল ইসলাম জানান, সাগরের পায়ের গোড়ালিতে ধারালো অস্ত্রের কোপ ও বুকে-পিঠে হাতুড়িপেটা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিন্নাহ সমর্থকরা ওই রাতে আলাউদ্দিন মাতুব্বর সমর্থকদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ১৩টি বসতঘর ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার সকালে আলাউদ্দিন মাতুব্বরের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে জিন্নাহ মাতুব্বরের সমর্থকদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে রাসেল মোল্লা, তোফায়েল শেখ, মোজাম মোল্লাসহ ৩৭টি বসতঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করে।

এদিকে বরগুনা প্রতিনিধি জানান, বরগুনার আমতলীতে সোমবার সকালে থ্রি হুইলার ও বাস শ্রমিকদের মধ্যে ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে সাত পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানসহ একাধিক গাড়ি ভাঙচুর করে উভয় পক্ষের শ্রমিকরা। এ ঘটনায় সোমবার বিকেল পর্যন্ত ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সংঘর্ষে আহতদের আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মো. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, কুয়াকাটা-আমতলী-পটুয়াখালী সড়কে পরিবহন চলাচল নিয়ে থ্রি হুইলার ও বাস শ্রমিক দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল। সোমবার সকালে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। বৈঠক শুরু হতে না হতেই সকাল ১০টার দিকে বাস ও থ্রি হুইলার শ্রমিকরা বাঁধঘাট চৌরাস্তায় অবস্থান নেয়। দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।


মন্তব্য