kalerkantho


ফেরিওয়ালা সেজে ডাকাতি!

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ডাকাতরা ফেরিওয়ালা সেজে প্রথমে একটি গ্রামকে চিহ্নিত করে এক-দেড় মাস ধরে সেখানে বিছানার চাদর, চুড়ি-ফিতা, শাড়ি-কাপড় ইত্যাদি বিক্রি করে। একপর্যায়ে গ্রামের সহজ-সরল মানুষের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলে বিভিন্ন পরিবারের গোপন খবর সংগ্রহ করে। পরে সুযোগ বুঝে তারা ওই সব বাড়িতে দলবল নিয়ে ডাকাতি করে। সম্প্রতি একাধিক ডাকাতির ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ডাকাতদের কাছ থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

রাজবাড়ী ডিবি সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর রাতে রাজবাড়ী জেলা সদরের খানখানাপুর ইউনিয়নের চরখানখানাপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক মাস্টার ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আমজাদ হোসেনের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে রাজবাড়ী থানায় মামলা হয়। পরে মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে ছয় ডাকাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় একটি স্বর্ণের চেইন ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

রাজবাড়ী ডিবি পুলিশের এসআই হিরণ কুমার বিশ্বাস জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে জিয়া মোল্লা, কামাল হোসেন, মিরাজ ফকির ও আরিফ হোসেন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আজাদ রহমান বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতরা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে। দুর্বৃত্তরা চুরি ও ডাকাতির ক্ষেত্রে নতুন কৌশল নেওয়া শুরু করেছে।


মন্তব্য